সুন্দরগঞ্জে কূ-প্রস্তাব দেয়ায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিক্ষিকার মামলা

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ৪:৪১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০১৯

সুন্দরগঞ্জ(গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে চাঁদা দাবিসহ কূ-প্রস্তাব দেয়ায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন সহকর্মী শিক্ষিকা । মামলা দায়েরের পর থেকে অভিযুক্ত শিক্ষক পলাতক রয়েছেন।
জানা গেছে, উপজেলার ছয়ঘড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা সুরাইয়া বেগমের ওপর কূ-দৃষ্টি পড়ে একই প্রতিষ্ঠানের সহকর্মী শিক্ষক খালেদ মোশাররফ তরফদারের।ওই শিক্ষকের বিভিন্ন সময় দেওয়া কূ-প্রস্তাব প্রত্যাখান করতে থাকেন শিক্ষিকা।
এ অবস্থা চলতে থাকায় গত ২০ অক্টোবর বিকেলে উক্ত শিক্ষক মোবাইল ফোনে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি, প্রাণ নাশের হুমকিসহ কূ-প্রস্তাব দেন শিক্ষিকাকে। উক্ত শিক্ষিকা বিষয়টি প্রধান শিক্ষকসহ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও অন্যান্য সহকর্মীদের নিকট অবগত করলে ম্যানেজিং কমিটির জরুরী সভায় উক্ত শিক্ষক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। কিন্তু কোন ন্যায় বিচার না পাওয়ায় বিক্ষুদ্ধ শিক্ষিকা উক্ত শিক্ষকসহ দুই জনের বিরুদ্ধে নিজে বাদি হয়ে সুন্দরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।মামলা নম্বর ৩১, তারিখ ১৭ নভেম্বর, ধারা ১৪৩/৩৮৫/৫০৬/৩৪। মামলা দায়েরের পর থেকে ওই শিক্ষক গ্রেফতার এড়াতে গত ২০ নভেম্বর থেকে মেডিকেল ছুটির আবেদন জানিয়ে নিজে আত্ম গোপনে চলে যান। এনিয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হাফিজুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি জানান উক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সভার সিদ্ধান্তসহ আবেদনপত্র সংশ্লিষ্ট বিভাগে প্রেরণ করা হয়েছে।

প্রধান শিক্ষক মমিনুল ইসলাম জানান এ ধরণের চরিত্রহীন শিক্ষক তার প্রতিষ্ঠানে দরকার নেই। উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার আশিকুর রহমান জানান উক্ত শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত। উপজেলা শিক্ষা অফিসার এ কে এম হারুন-উর-রশিদ জানান তার নিকট অপরাধী যেই হোক কোন ছাড় নেই। এব্যাপারে থানার ওসি মোঃ আব্দুল্লাহিল জামান জানান, আমি সদ্য যোগদান করায় মামলার বিষয়টি অগোচরে রয়েছে।