ঢাকারবিবার , ১৬ জুনe ২০২৪
  1. সর্বশেষ
  2. সারা বাংলা

মাতারবাড়ি সংযোগ সড়ক : ধীরগতির কাজে বাড়ছে গতি, ঘুম নেই ইন্জিয়ার ও ঠিকাদারের।

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
২ নভেম্বর ২০২৩, ১১:২৭ অপরাহ্ণ

Link Copied!

মহেশখালী প্রতিনিধি:-

মহেশখালী মাতারবাড়িতে সরকারের কয়লাবিদ্যুৎ সহ অনন্য প্রজেক্টের প্রায় শেষ হলেও দীর্ঘ দিন ধরে সংস্কারের কাজ শেষ হয়নি মাতারবাড়ির প্রধান সংযোগ সড়ক। ফলে সীমাহীন ভোগান্তিতে মাতারবাড়ী-ধলঘাটা ইউনিয়নের লক্ষাধিক মানুষ। পুরো সড়ক জুড়ে অসংখ্য খানাখন্দে ভরা সড়কে যানচলাচল অনেক টা অসম্ভব হয়ে পড়ে। তবুও বিকল্প উপায় না থাকায় ঝুঁকি নিয়ে যানচলাচল করে আসছে এমন টাই জানান ভুক্তভোগী মানুষগুলো।

আগামী ১১ ই নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাতারবাড়ীতে আগমনের বিষয়টি নিশ্চিত হলে নড়েচড়ে বসেন কর্তৃপক্ষ। এতোদিনের দায়সারাভাবে হওয়া ধীরগতির কাজে বাড়ছে গতি। বিগত তিনদিন ধরে রাত-দিন কাজ করে যাচ্ছেন। ঘুম নেই ইন্জিয়ার ও ঠিকাদারের।

সরজমিন গিয়ে জানা যায়,৫ কিলোমিটার সড়কের পয়তাল্লিশ কোটি টাকার কাজে গত এক সাপ্তাহ পূর্বেও দৈনিক সাত-আট শ্রমিকও কাজ করতো ।

ইতিপূর্বেই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক যোগাযোগ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আগমনের কারণে লন্ডভন্ড সড়কের একইভাবে কাজ করছিলো। পরে যা অল্প দিনেই ভেঙে যায়। ফলে এখনো অধিকাংশ কাজ অবশিষ্ট রয়েছে বলে জানান নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন দায়িত্বশীল। ভাঙন কবলিত এলাকা স্থানীয় সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক এমপি কাজ পরিদর্শন করে দ্রুত কাজ শেষ করার নির্দেশ দিলেও কাজের কাজ কিছুই হচ্ছেনা বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। দ্রুত কাজ না হওয়ায় অনেকেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান আসাদ এন্টারপ্রাইজ’কে দোষারোপ করেছেন।

জানা যায়, মাতারবাড়ি প্রধান সড়ক সংস্কারের টেন্ডার হওয়ার অনেকদিন হলেও কাজ হয়নি, অদৃশ্য ক্ষমতায় সঠিক সময়ে কাজ করেনি টিকাদারি প্রতিষ্টান।বেশ কয়েকবার তাগাদা দেওয়া সত্বেও ধীরগতিতে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান দুটি। অনেকেই জানান -ঠিকাদারের কাছে জিম্মি এলজিইডি। কোন কথায় পাত্তাই দিচ্ছেনা ঠিকাদার। যেনতেন ভাবে চালিয়ে যাচ্ছে কাজ।

এদিকে কাজের ধীরগতিতে বাড়ছে ভোগান্তি, অন্য দিকে চলছে ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্য। কোথাও এর প্রতিকার না পাওয়ায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম-ই যেন শেষ ভরসা। ফেসবুক এ ভুক্তভোগীদের আর্তনাদ, জানেনা কবে পাবে মুক্তি। রাজঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আল মুজিব উদ্দিন তার ফেইসবুক স্ট্যাটাসে ক্ষোভ প্রকাশ করে লিখেছেন -ডেলিভারির জন্য কোন মা বোনকে যেন মাতারবাড়ী সংযোগ সড়ক দিয়ে কোথাও না নিয়ে যায়। অনেকেই জানান – পরিবহন সমিতি যে কোন সময় মনগড়া ভাড়া বৃদ্ধি করলেও যাত্রীদের করার কিছুই থাকে না। কোন সচেতন ব্যক্তি অতিরিক্ত ভাড়া দাবি নিয়ে প্রতিবাদ করলে লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ। দীর্ঘদিন থেকে এভাবে চলে আসলেও নিরব জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় প্রশাসন।

মাতারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু হায়দার নির্বাচিত হওয়ার পর দীর্ঘদিনের ভাড়া নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে সোচ্চার হলে তিনিও ব্যর্থ হন পরিবহন সিন্ডিকেটের কাছে। পরিবহন সমিতির সিন্ডিকেট প্রভাবশালী হওয়াতে অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে হয়রানির শিকার হতে হন জানান,ভুক্তভোগীরা।

মাতারবাড়ী সড়কে ভোগান্তি ও ভাড়া নৈরাজ্য নিয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীকি মার্মা জানান -বিশেষ করে সিএনজি ড্রাইভাররা অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে। পরিবহন সমিতির দায়িত্বশীল দের ডেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

উপজেলা প্রকৌশলী সবুজ কুমার দে” এর দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি জানান, মহেশখালীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসায় উপলক্ষ্যে তড়িঘড়ি করে সংস্কার করা হচ্ছে সড়কটি। ১০ই নভেম্বরের আগেই সড়কটি চলাচলে উপযোগী করতে হবে , তাই সড়ক সংস্কার কাজের সার্বক্ষণিক তদারকি রাখছেন বলেন জানান।

149 Views

আরও পড়ুন