সমাজ কি সুস্থ নাকি নেপোটিজ্ম এ আসক্ত ??

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১:১৮ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৫, ২০২০

—————-

নেপোটিজ্ম(Nepotism)কথাটির অর্থ হলো স্বজনপোষণ, আত্মীয়পোষণ বা বন্ধু-বান্ধবদের প্রতি অতিরিক্ত পক্ষ পাতিত্ব বা অনুরাগ।একে Favouritism বা Partiality বললেও ভূল হবে না।অথ্যাৎ কোন একটি পেশাতে অনেক যোগ্য প্রার্থী থাকা সত্বেও নিজের পরিচিত ও জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে নিজের কাছের লোককে সুপারিশ করা এবং সেই কাজ পাইয়ে দেওয়াকেই মূলত নেপোটিজ্ম(Nepotism) বলে।

Advertisement

স্বজনপোষণ /আত্মীয়পোষণ বা নেপোটিজ্ম দেশে এবং দেশের বাইরের মানুষদের রন্ধ্রে রন্ধ্রে।সারা বিশ্বের রাজনীতিবিদ গুলোর দিকে তাকালেই এর ভয়াবহতা দেখা যায়।ভাবুন,কিভাবে একটি পরিবার দশকের পর দশক ধরে একটি দেশের রাজনৈতিক দলকে পারিবারিক সম্পত্তির মতো নিয়ন্ত্রণ করে চলতে পারে। উদাহরণ স্বরূপ,আমাদের পাশের দেশের নেহেরু-ইন্দিরা-সঞ্জয়-রাজীব-সোনিয়া-রাহুল পেরিয়ে প্রিয়াঙ্কা ও তার ছেলে মেয়েও অাসবে এই লাইনে।হ্যা,তারা হয়তো জনগণের নির্বাচিত ভোটে বিজয়ী হন তবে সেখানে অন্যদের সুযোগ পাওয়াটা বড় নিরূপায়।

চলচ্চিত্র জগৎও পিছিয়ে নেই নেপোটিজ্ম(Nepotism) এ।বলিউড/ঢালিউড এর প্রথম সারীর প্রায় অর্ধেক অভিনেতা অভিনেত্রী অাজ নেপোটিজ্মের প্রোডাক্ট।হতে পারে তাদের অনেকেই ভালো অভিনেতা অভিনেত্রী কিন্তু তাদের বেশিরভাগ জনই সুবিধাটা তো নেপোটিজ্মের দৌলতেই পেয়েছেন। আমি রণবীর কাপুর,ঈশান খাট্টা,আলিয়া ভাট সহ দেশীয় অভিনেত্রী অাবুল হায়াত এর কন্যা বিপাশা হায়াত এর কথা বাদ দিলেও তালিকাটি লম্বা হবে।
বর্তমান আমাদের সমাজের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ বিশেষ করে কর্মক্ষেত্রে নেপোটিজ্মের র্নিলজ্জ বিস্তার রয়েছে।একটি প্রতিষ্ঠানের জনবল নেয়ার সময় আত্মীয়প্রিতী এবং কাছের মানুষদের বেশি অগ্রাধিকার দেয়া সমাজের মানুষদের সাথে অবিচার বটে।দেশে এখন বর্তমানে আলোচিত টপিক মেডিকেল পরিক্ষার প্রশ্নফাঁস নিয়ে।কিন্তু এই সুবিধাবাদীরা তো কখনোই এক দিনে তৈরি হয় নি।স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একদম নিচ থেকে উর্দ্ধতন কর্মকর্তা রয়েছে এই প্রশ্নফাঁসের সাথে জড়িত।কালো টাকা উপার্জনের উদ্দেশ্য থাকলেও প্রশ্নফাঁসের শুরুটা নেপোটিজ্মই মূলত দায়ী যার অন্তরালে ধীরে ধীরে তা রূপ নেয় বানিজ্যিক ভাবে।

তাই আমি বলতে চাই,নেপোটিজ্ম(Nepotism) একটি সামাজিক সমস্যায় পরিণত হয়েছে।এটি একটি জাতীয় সমস্যাও।এর মাধ্যমে সক্ষম ও যোগ্য প্রত্যাশীরা উৎসাহ হারায় এবং হতাশা হয়ে পড়েন।নেপোটিজ্ম দূনীতি সৃষ্টি করে এবং একটি দেশের সামগ্রিক উন্নয়নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়।সূতরাং নেপোটিজ্ম (Nepotism) এড়ানোর জন্য দেশের উচ্চ পর্যায়ে অাসীনকৃত ব্যাক্তিবর্গ এবং সমাজ প্রতিনিধিদের সমাজের এই ঘৃণিত অাসক্ত থেকে উত্তরণের জন্য সময়োপযোগী উদ্যোগ নেয়ার জন্য অনুরোধ করছি।
———————–
মো.মোবারক হোসেন মোহন।
ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগ,
যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়,যশোর।