সংবিধানের মৌলিক অধিকার রক্ষার্থে সংগ্রাম করতে হবে- বিচারপতি বোরহানউদ্দিন

নিউজ নিউজ

ভিশন ৭১

প্রকাশিত: ১:১২ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২০

বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ’র ( বিজিসিটিইউবি) আইন বিভাগের ১৯, ২০, ২১ ও ২২তম
ব্যাচের শিক্ষার্থীদের বিদায় এবং ২৯ ও ৩০তম ব্যাচের নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত
হয়েছে।
এতে প্রধান অতিথি সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি জাস্টিস বোরহানউদ্দিন বলেন,
সংবিধানের মৌলিক অধিকার রক্ষার্থে সংগ্রাম করতে হবে।
মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২০) বিজিসি বিদ্ব্যানগরের বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটির বঙ্গবন্ধু ফ্রিডম
স্কয়ারে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে ।
প্রধান অতিথি বিচারপতি জাস্টিস বোরহানউদ্দিন আরও বলেন, জ্ঞানের ব্যাপক অনুশীলনের মাধ্যমে
নিজেকে একজন আইনজ্ঞ এবং সুনাগরিক হিসেবে তৈরী করতে হবে। দেশে আইনের শাসন, গণ
মানুষের ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে হলে আইনের শিক্ষার্থীদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। তাই
শিক্ষার্থীদের এমনভাবে নৈতিক মুল্যবোধ, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে জ্ঞান অর্জন করতে হবে যাতে
তোমরা ভবিষ্যতে জাতির নেতৃত্ব দিতে সক্ষম হবে। পেশা হিসেবে নয় একজন আইনের সেবক হিসেবে
নিজেকে তৈরী করে মানুষের জন্য কাজ করতে হবে। তাহলেই আপনার পেশা এবং জীবন সমৃদ্ধ হবে।
এই প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার আফসার উদ্দিন আহমদ নিজেকে মানুষের
জন্য উৎসর্গ করেছেন বলেই এই প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয়েছে। আর এই বিজিসি ট্রাস্টকে
এগিয়ে নেওয়ার দায়িত্ব শিক্ষার্থীদের। আইনি সহায়তাই একজন মানুষকে রক্ষা করতে পারে। শুধুমাত্র
সরকার একার পক্ষে এই দেশকে উন্নত দেশে পরিণত করা সম্ভব হবেনা। নিজেদেরকে দেশপ্রেমিক,
দক্ষ সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার মাধ্যমে সরকারকে সহযোগিতা করতে হবে।
উক্ত পোগ্রামে গেস্ট অব অনার হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ’র
উপাচার্য অধ্যাপক ড. সরোজ কান্তি সিংহ হাজারী।
আইন বিভাগের চেয়ারম্যান নাজনীন আক্তারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন
বিজিসি ট্রাস্টের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য জনাবা আফরিন আহমদ হাসনাইন ও চট্টগ্রাম
বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের ডীন প্রফেসর এবিএম আবু নোমান।
আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আসমা আল আমিন ও প্রভাষক সিদরাতুল মুনতাহা তৃনার
সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার প্রফেসর আ. ন. ম. ইউসুফ
চৌধুরী, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ড. নারায়ণ বৈদ্য, রেজিস্ট্রার এ.এফ.এম আখতারুজ্জামান
কায়সার এবং শিক্ষক ও শিক্ষিকাবৃন্দ।
পোগ্রামের শুরু হয় জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে। এরপর কোরআন তিলাওয়াত করেন
আব্দুল্লাহ আল কাফি, গীতা পাঠ করেন পুষ্পিতা দাশ, ত্রিপিটক মনি বড়ুয়া ও মান পত্র পাঠ করেন
বর্তমান শিক্ষার্থী শামীমা কাউসার।
এছাড়া নবাগত ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে থেকে বক্তব্য রাখেন এ.ইউ. আহমেদ, বিদায়ী ছাত্র-ছাত্রীদের পক্ষ
থেকে বক্তব্য রাখেন অনামিকা দে।

এতে আইন বিভাগের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীবৃন্দ অংশ গ্রহণ করে । অতিথিবৃন্দ বিদায়ী
শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা স্বরূপ ক্রেস্ট প্রদান করেন। এছাড়া অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের
অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে।