লালদীঘি ওরিয়েন্ট টাওয়ার কেলেঙ্কারী : জাল দলিল তৈরী করে চাঁদা দাবী। সাবেক উপমন্ত্রীর মামলা

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ৩:০৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২০

প্রেস বিজ্ঞপ্তি ঃ

লালদীঘির উত্তর পাড়স্থ ওরিয়েন্ট টাওয়ারের ডেভেলপার
হাজী সবুরের ওয়ার্কিং পার্টনার জনৈক এসএম আহমদ হোছেন,পিতা- মৃত মোজাহের মিয়া, দক্ষিণ ঢেমশা পৌর এলাকা, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম কর্তৃক জাল জলিল সৃষ্টি করে ১০ লক্ষ টাকা ভাড়া আত্মসাৎ ও ৫ কোটি টাকা চঁাদা দাবীতে প্রাণ নাশের হুমকির অভিযোগে বিজ্ঞ মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট ২য় আদালত আবু সালেম মোহাম্মদ নোমান এর আদালতে এ মামলা দায়ের করা হয়েছে।
মামলার বাদী সাবেক এমপি ও উপমন্ত্রী কোতোয়ালী থানাধীন লালদীঘি ওরিয়েন্ট টাওয়ারের মালিক মরহুম ব্যারিষ্টার আনোয়ারুল আজিমের পুত্র প্রফেসর আরিফ মইন উদ্দীনের পক্ষে তৎ কার্যকারক তারিন মহি উদ্দীন আজিম (৪১) বাংলাদেশ দন্ডবিধির ৩৮৫/৪০৬/৪২০/৪২২/৪৬৮/৫০৬/১০৯/৩৪ ধারায় মামলাটি দায়ের করেন।

বিজ্ঞ আদালত মামলার নথিপত্র পর্যালোচনা, বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ এবং আইনজীবীগণের বক্তব্য শুনে অভিযোগ বিষয়ে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পিবিআই,চট্টগ্রামকে নির্দেশ দেন।

অভিযোগে প্রকাশ গত ৩০/০৫/২০০০ইং তারিখে ভেভেলপার ব্যবসায়ী হাজী আব্দুস সবুরের সাথে বাদীর একটি ভূমি উন্নয়ন চুক্তি হয়। উক্ত চুক্তির ৩নং সাক্ষী ও মূল ডেভেলপার হাজী সবুরের ওয়ার্কিং পার্টনার ১নং আসামী আহমেদ হোসেন (৫২) তার সংগীয় অন্যান্য আসামীদের সহায়তায় জালিয়াতির মাধ্যমে বর্তমানে নিজেই উক্ত টাওয়ার এর মালিক সেজে প্রতারণার মাধ্যমে ভাড়াটিয়াগণ হতে ভাড়া তুলে ১০ লক্ষ টাকা এবং সেলামী বাবদ ১কোটি ৯০ লক্ষ টাকা সর্বমোট ২ কোটি টাকা
আত্মসাৎ করেন।

সর্বশেষ গত ০২/০৯/২০২০ইং তারিখে দুপুর ১২টায় আপোষ বৈঠকে উপস্থিত হয়ে ১নং আসাামীসহ অপরাপর আসামীরা ৫কোটি টাকা চঁাদা না দিলে কোন ধরনের আপোষ মীমাংসা হবে না এবং উক্ত চঁাদা না পেলে বাদীকে হত্যা করিবে মর্মে আসামী ও তার দলবল হুমকি দেয়। বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন আইনজীবীবৃন্ধ যথাক্রমে-
এ.এম. জিয়া হাবীব আহসান, এ.এইচ.এম জসিম উদ্দিন, দেওয়ান ফিরোজ আহমদ, মো. সাইফুদ্দীন খালেদ, মোঃ হাসান আলী, মোহাম্মদ বদরুল হাসান প্রমুখ।