যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে তাহিরপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের শোক প্রকাশ

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১:৪৬ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক:

দেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্পগ্রুপ যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বাবুলের মৃত্যুতে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্ধ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।
উল্ল্যেখ যে, করোনায় আক্রন্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে (সাবেক অ্যাপোলো) তিনি সোমবার বিকালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।
মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও তিন মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
গত ১৪ জুন নুরুল ইসলামের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। ওই দিনই তাকে এভার কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। করোনায় তার কিডনি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। বিশিষ্ট এই শিল্পোদ্যোক্তার চিকিৎসায় এভার কেয়ারের ডা. ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মাহবুদের নেতৃত্ব ১০ সদস্যবিশিষ্ট মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়।
এর বাইরে চীনের ৪ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এবং সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের দুই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে পরামর্শ দিয়েছেন।
তার স্ত্রী সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বর্তমান জাতীয় সংসদের এমপি সালমা ইসলাম। ছেলে শামীম ইসলাম যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, তার তিন মেয়ে- রোজালিন ইসলাম, মনিকা ইসলাম এবং সোনিয়া ইসলাম যমুনা গ্রুপের পরিচালক।
যমুনা গ্রুপ বাংলাদেশের বৃহৎ শিল্পগ্রুপ। ১৯৭৪ সালে নুরুল ইসলাম যমুনা গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেন। মেধা, দক্ষতা, পরিশ্রম ও সাহসিকতার মাধ্যমে একে একে শিল্প এবং সেবা খাতে গড়ে তোলেন ৩৮টি প্রতিষ্ঠান।
সোমবার (১৩ জুলাই) বিকেল ৫টায় গণমাধ্যমে প্রেরিত সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা প্রেসক্লাব প্রতিষ্ঠাতা সাধারন সম্পাদক, সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাব প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক দৈনিক যুগান্তর ষ্টাফ রিপোর্টার সাংবাদিক হাবিব সরোয়ার আজাদ স্বাক্ষরিত এক শোকবার্তায় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দরা শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন এবং মরহুমের বিদেহি আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।
বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতৃবৃন্ধরা নেতৃবৃন্দরা বলেন, বড় অসময় চলে গেলেন দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং মানুষের কর্মসংস্থান তৈরির বিশিষ্ট এই শিল্পোদোক্তা বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম। তাঁর মৃত্যুতে দেশের শিল্পখাতসহ গণমাধ্যমকর্মীদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। এ সময় তার চলে যাওয়া দেশের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর দাতারা হলেন, তাহিরপুর প্রেসক্লাব প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রমেন্দ্র নারায়ণ বৈশাখ,সাংগঠনিক সম্পাদক সঞ্জিব তালুকদার টিটু, কোষাধক্ষ সাইফুল ইসলাম সোহেল, আতিকুর রহমান আতিক, রাজন চন্দ্র চন্দ, রাহাদ হাসান মুন্না,আহমদ কবির,আবু জাহান তালুকদার ,সাবজল হোসাইন,রোকন উদ্দিন,তানভীর আহমেদ,যুগান্তর স্বজন সমাবেশ উপদেষ্টা খালেদ মোশারফ, মুজিবুর রহমান তালুকদার, স্বপন কুমার দাস, মহিলা শিশু ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা সন্তান (শিক্ষক) মনোয়ারা আজাদ সদস্য শিহাব সরোয়ার শিপু প্রমুখ।
এদিকে পৃথক এক বিবৃতিতে তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলার সাত ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্ধ যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

যমুনা গ্রপের চেয়ারম্যান দৈনিক যুগান্তর ও যমুনা টেলিভিশনের প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে অপর বিবৃতিদাতারা হলের, তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, ভাইস চেয়ারম্যান হাজি রিয়ার উদ্দিন খন্দকার লিটন, খালেদা বেগম, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হোসেন খাঁন, সাধারন সম্পাদক অমল কান্তি কর, উপজেলা বিএনপি সভাপতি নুরুল ইসলাম সাধারন সম্পাদক রুহুল আমিন, ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাসেম, বোরহান উদ্দিন,বিশ্বজিৎ সরকার, খসরুল আলম খসরু আফতাব উদ্দিন, আব্দুর জহুর,আজহার আলী, তাহিরপুর কয়ল া আমদানিকারক সভাপতি হাজি আলকাছ উদ্দিন খন্দকার সাধারন সম্পাদক হাজি মোশারফ হোসেন তালুকদার।