মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত, সন্ধ্যায় আঘাত আনতে পারে বুলবুল

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১০:১১ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৯, ২০১৯

নিউজ ডেস্ক :

বাংলাদেশের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়টি সন্ধ্যা থেকে মধ্য রাতে বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উপকূলবর্তী সুন্দরবনের কাছ দিয়ে খুলনা উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ১০ নম্বর, চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৯ এবং কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরকে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে।

ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং আশপাশের দ্বীপ ও চরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেত; চট্টগ্রাম, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর এবং আশপাশের দ্বীপ ও চরে ৯ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়টি চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ৫শ’ থেকে ৭’শ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে রয়েছে। এটি আরো ঘণীভূত হয়ে এগিয়ে আসতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ১শ’ কিলোমিটার যা দমকা ও ঝড়ো হাওয়া আকারে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। বুলবুলের অগ্রবর্তী অংশের প্রভাবে সমুদ্রবন্দর, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও উপকূলীয় এলাকায় দমকা ও ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা ও মাঝারি বৃষ্টি ও ঢাকাতে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে।

ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ৫ থেকে ৭ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস হতে পারে জানিয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় জানিয়েছেন, খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, বরগুনা, পটুয়াখালি, পিরোজপুর ও ভোলাকে ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনায় রাখা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। বুলবুলের সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপকূলবর্তী জেলাগুলোর সব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়েরর কারণে জেএসসির স্থগিত পরীক্ষা হবে ১২ নভেম্বর ও জেডিসির ১৪ই নভেম্বর। দুর্যোগ মোকাবেলায় সব ধরনের প্রস্ততি নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।