মানব সেবার ব্রত নিয়ে আমেরিকা থেকে ছুটে আসা ডাক্তার দম্পতি সোস‌্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১২:৪৩ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১, ২০১৯

মোহাম্মদ আরিফ হোসেন :

নিউজিল্যান্ডের নাগরিক এড্রিক বেকার বাংলাদেশের দরিদ্র মানুষকে চিকিৎসা দেওয়ার জন্য টাঙ্গাইলের মুধূপুর কালিয়াকৈরে গ্রামে প্রতিষ্ঠা করেন ছোট একটি হাসপাতাল। গ্রামের সবাইকে আন্তরিকতার চিকিৎসা দিয়ে খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেন এড্রিক গ্রামের মানুষ এট্রিককে ভালোবেসে ডাক্তার ভাই বলে ডাকে।তার পরে এড্রিকের হাসপাতালের হাল ধরতে সূদুর আমেরিকা থেকে ছুটে আসেন জেসিন ও মেরিন্ডি দম্পতি।

দীর্ঘ ৩২ বছর ধরে চিকিৎসা সেবা দিয়ে গেছে ডাক্তার ভাই এড্রিক। ২০১৫ সালে ডাক্তার এট্রিক দুরারোগ্য আক্রান্ত হলে গ্রামবাসী তাকে ঢাকায় এনে চিকিৎসা করাতে চাইলে ডাক্তার ভাই এড্রিক রাজি হলেন না তিনি বলেন তার প্রতিষ্ঠিত এই হাসপাতালে চিকিৎসা নিবেন তিনি এবং মৃত্যু বরণ করলে এখানেই শায়িত হবেন তিনি।

২০১৪ সালে হানিফ সংকেত পরিচালিত ইত্যাদি অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত হলেন ডাক্তার ভাই এড্রিক , ইত্যাদির মাধ্যমে ডাক্তার ভাই এড্রিককে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য সরকারের কাছে আবেদন করা হয়।ডাক্তার ভাই এড্রিক অসুস্থ হয়ে পড়লে তিনি ইত্যাদি মাধ্যমে তার এই হাসপাতালের হাল ধরার জন্য বাংলাদেশের চিকিৎসকদের আহ্বান জানান, কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো স্বার্থে বিভোর বাংলাদেশের কোনো চিকিৎসক এগিয়ে আসেননি হাসপাতালটির হাল ধরতে।

দেশের কেউ সাড়া না দিলেও তাঁর আহ্বানে সূদর আমেরিকা থেকে ছুটে এসেছেন- আরেক মানবতাবাদী ডাক্তার দম্পতি জেসিন এবং মেরিন্ডি।

রাষ্ট্রীয় আরাম আয়েশ ত্যাগ করে মানবতার সেবার জন্য বাংলাদেশের ডাক্তার ভাইয়ের প্রতিষ্ঠিত কালিয়াকৈট হাসপাতালে আসেন জেসিন ও মেরিন্ডি শুধু তাই নয় তাদের সাথে তাদের সন্তানদেরও নিয়ে একবারে আমেরিকার থেকে চলে আসেন তারা। ইতোমধ্যে জেসিন ও মেরিন্ডির শিশুদেরকে স্থানীয় বিদ্যালয়ে ভর্তি করিয়ে দিয়েছেন তারা। জেসিন ও মেরিন্ডি বলেন ডাক্তারের উদ্দেশ্য হলো জনগণকে সেবা প্রদান করা। সেই উদ্দেশ্য নিয়ে তারা এগিয়ে আসে।