ভোলায় ছাদ থেকে লাফ দিয়ে এক ছাত্রীর আত্মহত্যা।

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১১:২৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২০

মো. সাইফুল ইসলাম,ভোলা প্রতিনিধি:::

ভোলায় বাসার ছাদ থেকে পরে এইচএসসি পরিক্ষার্থী ছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে।নিহত সাদিয়া আফরিন(১৮) ভোলা সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী ও এইচএসসি পরিক্ষার্থী।

ভোলা সদর উপজেলার পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডে গত বুধবার বিকালের দিকে সাদিয়া আফরিন(১৮)ছাদ থেকে পরে যায়। তাদের গ্রামের বাড়ি বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলায়।নিহত সাদিয়ার বাবা মো:নাছির ভোলা সদর উপজেলার সমাজ সেবা অধিদপ্তরের একজন কর্মকর্তা। ভোলা শিল্পকলা একাডেমির সামনে নিজাম মিয়ার বাসায় ভাড়া থাকতেন । সাদিয়ার বাবা নাছির মিয়ার কাছে ফোন আলাপ এ তার মৃত্যুর কথা জানতে তিনি জানান, প্রতিদিন এর মত বিকেলে ছাদে হাটতে গেলে সাদিয়া পা ফস্কে ৩ তলা ছাদ থেকে পরে যায়।পরে তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় । তার আবস্তা বেগতিক দেখে ডাক্তাররা তাকে বরিশাল হাসপাতালে এবং সেখান থেকে ঢাকায় রেফার করে ঢাকা হাসপাতালে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল নয়টায় মৃত্যুবরন করে সাদিয়া ।

প্রাথমিক ভাবে স্বাভাবিক মৃত্যু মনে হলেও বিভিন্ন জল্পনা কল্পনার মাঝে অনলাইন থাকা স্ট্যাটাস দেখেলে বোঝা যায় নেহাত আত্মহত্যা।তার এক বান্ধবীর স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হল:’এবারের এইচএসসি পরিক্ষার্থী সাদিয়া কাল রাতে ছাদ থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে।ঘটনায় ওর পা ভেঙে যায়।হাসপাতালে নেওয়ার পর বেচেঁ থাকার আশা ছিল মাত্র ১০%।ভেবে ছিলাম রক্ষা পেয়ে যাবে।কিন্তু ভাগ্য ওর ডাকে সাড়া দেয়নি।আজ সকালে সবাইকে কাঁদিয়ে ওপাড়ে চলে গেল হাস্যজ্জ্বল মেয়েটি।ঘটনা সূত্রে জানা গেল,সে কাউকে ভালোবাসত।আর সেই ভালবাসার মান দিতে গিয়ে প্রানদিতে মেয়েটিকে।ভালোবাসা ভালে,তাই নিজের জীবনের থেকে কাউকে ভালোবাসা উচিৎ নয়।স্বার্থপর বেঈমান মানুষগুলো এইভাবে সুন্দরভাবে পৃথিবীতে বেঁচে যায়।চলে যায় শুধু সাদিয়ার মত নিঃসার্থ ভাবে ভালোবেসে যাওয়া সাদিয়ার মত মেয়েগুলো।সাদিয়ার আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

তবে এটি আত্মহত্যা নাকি রহস্যময় মৃত্যু এটি খতিয়ে দেখবে ভোলা প্রশাসন।শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মরহুমা সাদিয়া আফরিন এর জানাজা শুক্রবার গ্রামের বাড়ি মেহেন্দীগঞ্জ এ জুমআ বা’আদ অনুষ্ঠিত হবে।