বিজ্ঞানের হারিয়ে যাওয়া ৫টি আবিস্কার — মোঃ জুয়েল

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১:৪০ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৯

———–
বিজ্ঞান ছাড়া আমরা একটা দিন ও ভাবতে পারিনা। কারন বিজ্ঞান আমাদের জীবনকে সহজ করে দিয়েছে। তবে বিজ্ঞানের অনেক আবিস্কারই জনগনের কাছে পৌঁছাতে পারেনি। এমনি হারিয়ে যাওয়া ৫টি আবিস্কার নিয়ে আজ আমরা আলোচনা করবো।

Chronovisor

Marcello Pellegrino Ernetti ;একজন ইটালিয়ান ধর্মযাজক এবং প্যারানরমাল এক্সপার্ট ছিলেন। ১৯৬০ সালে তিনি এমন একটি যন্ত্রের আবিষ্কার করেন ; যার সাহায্যে অতীতের ঘটনা দেখতে এবং শুনতে পাওয়া যেত। তিনি এটির নাম দেন Chronovisor. তার মতে লুমিনাস এনার্জি এবং সাউন্ড যখন কোনো বস্তু নির্গত হয়,তখন সেটি আবহাওয়ায় রেকর্ড হয়ে যায় এবং Chronovisor এর সাহায্যে এই যেকোনো ঘটনার এনার্জি কে রি কন্সট্রাক্ট করে অতীতের ঘটনা দেখা এবং শোনা সম্ভব। তবে তার মৃত্যূর আগে তিনি Chronovisor যন্ত্রটিকে ধ্বংস করে দেন।

Flexible Glass

Isidore of Seville ফ্লেক্সিবল গ্লাস বা নমনীয় কাচের আবিস্কার করেন। তখনকার রোমের সম্রাট ছিলেন Tiberius Caesar.

Isidore তার এই আবিস্কার সম্রাট Tiberius Caesar এর সামনে পেশ করেন।Tiberius Caesar এটিকে ছুড়ে ফেলে দেন। পাত্রটি না ভেঙে বেকে যায়। তখন Isidore এটিকে সোজা করে তাকে এর উপযোগিতা দেখান এবং এটাও বলেন নমনীয় কাচের আবিষ্কার রাজ্যে অনেক কাজে লাগবে। তা শুনে সম্রাট Tiberius Caesar আরো রেগে যান এবং বলেন এ ধরনের আবিস্কার রাজ্যের মানুষের কাছে সোনা এবং রূপার মূল্য কমিয়ে দেবে এবং হীরা-ধনরত্নের অসম্মান হবে। তাই তিনি তার এই আবিষ্কার কে ধ্বংস করে দেয়ার আদেশ দেন এবং এর আবিষ্কারক অর্থাৎ Isidore কে মৃত্যূদন্ড দেন।

Wireless Power Transmission

বিজ্ঞানী নিকোলা টেসলা বিদ্যুতের Wireless Transmission এর জন্য পরীক্ষা নিরীক্ষা করছিলেন। ১৮৯১-১৯০৪ সালের মধ্যে তিনি Tesla Coil এর মাধ্যমে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে বৈদ্যুতিক তার ছাড়াই স্থানান্তর করতে সক্ষম হন। তার লক্ষ্য ছিল পুরো পৃথিবীতে বিদ্যুত সরবরাহ করা wirelss বা বেতার মাধ্যমে। দুঃখজনক ভাবে এই প্রোজেক্ট টির ইনভেস্টর প্রোজেক্ট টির পিছনে অর্থ ব্যয় করছিলেন,তিনি অর্থ ব্যয় করা বন্ধ করে দেন। তাই তার এই প্রোজেক্ট টিরর কাজ অর্থের অভাবে বন্ধ হয়ে যায় ।

Starlite

১৯৭০-৮০ সালের মধ্যে অ্যামাচার কেমিস্ট মরিস ওয়ার্ড এমন একটি পদার্থ আবিস্কার করেন,যেটির খুব উচ্চ তাপমাত্রা সহ্য করার ক্ষমতা ছিল। তিনি এর নাম দেন Starlite. এই পদার্থ টির ১০ হাজার ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রা সহ্য করার ক্ষমতা ছিল। একটি পরীক্ষাতে দেখা যায়,একটি ডিম কে স্টারলাইট দিয়ে ঢেকে দিয়ে আগুনের সামনে ধরা হলেও ডিম টি সম্পূর্ণ রূপে অক্ষত ছিল। নাসা সহ অন্যান্য বড় বড় সংস্থা এই পদার্থ টির ফর্মুলা জানার চেষ্টা করে,কিন্তু ওয়ার্ড এটির সিক্রেট কখনোই কাওকে বলেননি। ২০১১ সালে তার মৃত্যু হয়। তাই এটির ফর্মুলা আর জানা সম্ভব হয় নি,কারণ মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি এটির সিক্রেট কাওকে বলেননি।

Sloot Digital Coding System

জেন স্লুট নামক নেদারল্যান্ডস এর একজন ইলেক্ট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ার ১৯৯৫ সালে এমন একটি ডাটা কমপ্রেশন টেকনিক আবিষ্কার করেছিলেন,, যাতে একটি সম্পূর্ণ হলিউড মুভিকে মাত্র ৮ Kb মেমোরিতে সেভ করা যেত। তিনি এই কমপ্রেশন টেকনিক টি Philps কোম্পানির এক্সিকিউটিভের সামনে প্রদর্শন করেছিলেন। তিনি মাত্র ৬৪ Kb মেমোরির একটি চিপ দিয়ে লাগাতার ১৬ টি ফুল কালারের,ফুল রেজ্যুলেশনের হলিউড মুভি চালিয়ে দেখান। কিন্তু কোম্পানির সাথে ডিল সাইন হবার একদিন আগে ১৯৯৯ সালের ১১ ই জুলাই হার্ট অ্যাটাকে তিনি মারা যান। এবং যেই ফ্লপি ডিস্কে এর এলগরিদম টি সেভ ছিল, সেটিরও কোনো খোজ পাওয়া যায় নি।

লেখক-
জুয়েল,শিক্ষার্থী
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ।