বাবা দিবসে আমার বাবা!!

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১১:১৫ অপরাহ্ণ, জুন ২১, ২০২০

————-
মানুষের কাছে বাবা শব্দটির শাব্দিক অর্থ কি আমার জানা নেই। আমার কাছে বাবা মানে, দীর্ঘ এক ছায়া, একটা বিশ্বাস, ভরসা, এক অবলম্বন। যার অস্তিত্ব ও অবদান অস্বীকার করার সাধ্য আমার নেই।

বাবা মানে যেন এক বিশাল আকাশ, শুন্যে ডুবেও যেন ছাদের নিশ্বাস!

বাবা_মানে_জীবন_শিক্ষক।।
বাবা মানে ভয় কিসের? আমি ত আছি। একটা মেয়ের কাছে বাবা মানে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জীবন-শিক্ষক, পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মানুষ, শ্রেষ্ঠ পুরুষ। এমন একজন পুরুষ যাকে চোখ বন্ধ করে বিশ্বাস করা যায়, যার কাছে সব-সময় মুখ ফুটে কিছু বলার প্রয়োজন পড়ে না,যিনি চোখ দেখেই রোগ বুঝতে পারেন।

বাবা_মানে_বিশ্বস্ত_বন্ধু।।
আমার বাবা আমার ভীষণ প্রিয় মানুষ। তাকে ছাড়া আমি অসম্পূর্ণ।আমি ছোটবেলা থেকেই আমার বাবার ভীষণ কাছের, তার সাথে আমার শত রাজ্যের আলাপন।প্রতিনিয়ত ঘটে যাওয়া গল্প তাকে ফরফর করে না বললে,আমার দিন যেত না। তিনি এমন একজন মানুষ যে আমার সব কথা ভীষণ মনোযোগ দিয়ে শুনেন। খুব মজার একটা বিষয়ই জানলাম সেদিন, যেটা আমার স্মৃতিতে ছিল না। আমি কল্পনাপ্রেমি, কাল্পনিক জগৎ নিয়ে আমার ভীষণ মাতামাতি। অবসরে শুইয়ে শুইয়ে নানারকম স্বপ্ন বানাই, এটাই আমার শখ। আর এ সম্পর্কে আমি কারও সাথে কথা বলতে পছন্দ করিনা(সে যত আপনই হোক)। আমার কাল্পনিক চিত্রগল্পের সময়, আমাকে কেউ ডাকলে/কিছু বললে আমি ভীষণ বিরক্তও হই। ত গতদিন কোন এক কথার প্রেক্ষিতে আপুদেরকে আমার কাল্পনিক স্বপ্ন বানানোর কথাটা মুখ ফোস্কে বলে ফেললে, আপু বলল, তুই ত ছোটবেলা থেকেই এমন পাগল। কতরকম আজব আজব স্বপ্ন বানাতিস আর আব্বুর সাথে খোশগল্প জুড়তিস। আর আব্বুও তোর গল্প মনোযোগ দিয়ে শুনত। আমি ত কোনদিন কিছু বুঝতাম না, ভাবতাম ছোটরা মনে হয় এমনই হয়। যাইহোক এটা জেনে আমার খুব ভাল লাগলো যে আমার কথাগুলো কতটা গুরুত্ব দিয়ে আব্বু শুনত। কেউ গুরুত্ব না দিলে অথবা মনোযোগ দিয়ে কথা না শুনলে কিন্তু কথা বলা যায় না, জানেন ত?

বাবা_মানে_একরাশ_আহ্লাদ।।
আমি ছোটবেলা থেকে ভীষণ আহ্লাদী, ব্যথা পেলে ততক্ষণ কান্না করতাম যতক্ষণ না বাবা দেখছে! সেও আমাকে নিয়ে সবসময় টেনশনে থাকে কারণ আমি নাকি অনেক বেশি অবুঝ, বোকা, আর শুধু এক্সিডেন্ট করে মারাত্মক মারাত্মক ব্যথা পেতাম।

#বাবা_মানে_অনুপ্রেরণা-পথপ্রদর্শক।।
ছোটবেলা থেকেই কখনো প্রাতিষ্ঠানিকভাবে ভাল ছাত্রী ছিলাম না আমি। এখনকার বাচ্চারা যেমন এমনিই A+ পেয়ে যায়,,,মুখের দুধ খাওয়া ছোটার আগেই কোচিং সেন্টারে দৌড়ায়,,,, A+ না পেলে বাবা-মা বকা দিবে তাই কান্নাকাটি করে। আমার কোন এমন স্মৃতি নেই।ভাল রেজাল্ট কি, খারাপ রেজাল্ট কি এটাই বুঝতাম না আমি। আমি ভাবতাম আমি যেটা পেয়েছি সেটাকেই ভাল রেজাল্ট বলে! কারণ, আমার বাবা, তিনি আমাকে সবসময়ই আশ্বাস দিতেন যে আমিই বেস্ট। আমি অনেক ভাল রেজাল্ট করছি, আরও ভাল রেজাল্ট করার জন্য ইন্সপায়ার করত, বলত আমার মেয়ে পারবে। এটা আমার সবথেকে লক্ষী মেয়ে। আমি কখনো বুঝিই নাই যে আমি কত খারাপ রেজাল্ট করতাম। যখন বুঝ হতে শুরু করল তখন আগের রেজাল্ট বের করে দেখলাম আল্লাহ, আমি এত গাধা-মার্কা স্টুডেন্ট?

#বাবা_মানে_আত্মবিশ্বাস।।
পরিবারে বাবার অবদান, জীবন সংগ্রাম, সামাজিকভাবে টিকে থাকার লড়াই, নিজের সামাজিক অবস্থা ধরে রাখা, সমাজের আর ১০জনের সাথে চলতে পারার শিক্ষা গ্রহণ করা, নিজেকে আত্মবিশ্বাসী করে তোলা।

বাবাকে নিয়ে কি অল্প বাক্যে লেখা যায়?? কত কত কথা আর স্মৃতি,লিখতে গেলে শেষই হয় না। তবু ছোটবেলার কিছু স্মৃতি আর আমার বাবাকে তুলে ধরলাম, যিনি আমার জীবন-যুদ্ধের অনুপ্রেরণা। শুধুমাত্র ভালবাসি কথাটা বলে বাবার প্রতি ভালবাসা, শ্রদ্ধা এবং সম্মান প্রকাশ করা আমার পক্ষে অসম্ভব!
——–
জয়া ইসলাম
কলেজ অব হোম ইকোনমিকস