পেঁয়াজের বাজার অস্থির, ঘন্টায় ঘন্টায় বাড়ছে দাম

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১১:০৬ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯

সাফওয়ান আল আজিজ,
কক্সবাজার শহর প্রতিবেদক:

নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য পেঁয়াজের বাজার অস্থির হয়ে উঠেছে। কক্সবাজার শহরের পাইকারি বাজারে গতকাল রবিবার এক দিনেই ভারতীয় পেঁয়াজের কেজিপ্রতি দর ৬০ টাকা থেকে ২০/৩০ টাকা হারে বেড়েছে ৮০ থেকে ৯০ টাকা হয়েছে । অন্যদিকে চট্টগ্রামেও প্রতিদিন দাম ১০-১৫ টাকা করে বাড়ছে।

বাড়তে বাড়তে ঢাকার খুচরা বাজারে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজের দাম ৬৫/৭০ টাকায় উঠেছে বলে ব্যবসায়ী দের সূত্রে জানা যায় । অন্যদিকে ভারতীয় পেঁয়াজ খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৮০\৯০\৯৫ টাকা দরে। সপ্তাহ দুয়েক আগেও দেশি ও ভারতীয় পেঁয়াজ কেজিপ্রতি ৩৫ /৪০ টাকা ছিল। ব্যবসায়ীদের তথ্যমতে এক মাসে পেঁয়াজের দাম ৭৬ শতাংশ বেড়েছে।

বড় বাজারের পাইকারি একজন ব্যবসায়ী রবিবার রাতে প্রতিবেদক কে বলেন, শনিবার সেখানে ভারতীয় পেঁয়াজ কেজিপ্রতি ৫০-৫৮ টাকা ছিল, অাজ তা ৮০-৯০ টাকায় ওঠে। দেশি পেঁয়াজ বাজারে নেই বললে চলে । তিনি বলেন, ভারতে বন্যার কারণে পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেছে বলে ঢাকা/ চট্টগ্রামের পাইকারি ব্যবসায়ীরা দাবি করে । এ কারণে বাংলাদেশের বাজারেও প্রভাব পড়েছে। ভারত বিভিন্ন দেশ থেকে পণ্যটি আমদানি শুরু করেছে বলে দাবি করেন তিনি।

চট্টগ্রামে চার দিনের ব্যবধানে কেজিপ্রতি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ২৫ টাকা। পাইকারি বাজারে গত সপ্তাহ থেকে পণ্যটির দাম বাড়তে শুরু করে। গত সপ্তাহ শেষে কেজিপ্রতি পেঁয়াজের দাম ৭ থেকে ১০ টাকা বেড়ে বিক্রি হয়েছিল ৪০থেকে ৪৫/৫০ টাকা। অাজ রোববার ৪ টার পর থেকে বিশ- পঁচিশ টাকা করে বাড়ছে।

বড় বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, রোববার সকালে পাইকারি বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজ মণভেদে বিক্রি হয়েছিল ৫৫/৫৮ থেকে ৬০ টাকা। একই পিয়াজ বিকালের পর থেকে ৭৫-৮০ টাকা ।

বড় বাজারের আড়তদারি প্রতিষ্ঠান কাশেম ষ্টোরের কর্মচারী মোহাম্মদ ফারুক প্রতিবেদক কে বলেন, আমদানি করা পেঁয়াজের বাজার ভারতের ওপর নির্ভরশীল। ভারতে দাম বাড়ায় পাইকারি বাজারে প্রতিদিন দশ-পনের টাকা করে বাড়ছে।

তবে বর্তমানে বিভিন সূত্রে জানা গেছে বন্যায় ভারতের বিভিন্ন অংশ প্লাবিত হওয়ায় চলতি বছরে মৌসুমি পেঁয়াজ উৎপাদনে ঘাটতি দেখা দিয়েছে। তাই এ বছর ভারতের বাজারেও পেঁয়াজের মূল্য বেশ চড়া। তারই পরিপ্রেক্ষিতে দেশটির সরকার রান্নার জন্য অতি প্রয়োজনীয় এ উপাদানটির রফতানি নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে।
যা বাংলাদেশে তার প্রভাব বিস্তার লাভ করবে ব্যাপক হারে। কারণ বাংলাদেশ একমাত্র ভারতীয় পিঁয়াজের নির্ভরশীল । কারণ প্রতিবছর ভারত বাংলাদেশ কে বড় হারে এই নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্যর যোগান দেয় ।