বুধবার ২৭শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
আমাদের সম্পর্কে
যোগাযোগ

পুলিশ পরিদর্শককে ফাঁসাতে অন্যের প্ররোচনায় মিথ্যা অভিযোগ

অক্টোবর ১৩, ২০২১
প্রিন্ট
নিউজ ভিশন

বার্তা পরিবেশকঃ

কক্সবাজারের চকরিয়ায় সীমানা বিরোধের জেরে সৃষ্ট উভয় পক্ষের মারামারির ঘটনায় অভিযোগের প্রেক্ষিতে মিমাংসায় ক্ষতিপূরণের টাকা আত্মসাতের মিথ্যা অভিযোগে এক সাহসী পুলিশ পরিদর্শককে ফাঁসাতে উঠেপড়ে লেগেছে এক জন সাংবাদিক সহ কয়েকজন দুষ্কৃতকারী।

তৎকালীন হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শকের বিরুদ্ধে সহকারী পুলিশ সুপার বরাবর আবুল বশর নামক এক ব্যাক্তি একজন সাংবাদিকের প্ররোচনায় না বুঝে মিথ্যা অভিযোগ করেন বলে জানা যায়। উদ্দেশ্যে প্রণোদিতভাবে ঐ কথিত সাংবাদিক কর্তৃক দৈনিক আমার সংবাদ ও দৈনিক ইনানী পত্রিকায় মিথ্যা ও মানহানিকর সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে বলে জানান পুলিশ পরিদর্শক মাহতাবুর রহমান।
বর্তমানে চকরিয়া মাতামুহুরী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে কর্মরত পুলিশ পরিদর্শক মাহতাবুর রহমান একজন চৌকস পুলিশ কর্মকর্তা। তিনি মাগুরায় পুলিশের ডিবিতে কর্মরত থাকা অবস্থায় দুই বার সাহসী পুলিশ অফিসার হিসেবে পুরুষ্কৃত হন।চকরিয়া বরইতলী ইউনিয়নের পহরচাঁদা বিবিরখিল গ্রামের শফি উল্লাহর ছেলে আবুল বশর গত ৩১ মার্চ সীমানা বিরোধের জের ধরে তার ও আলমগীরের পরিবারের মধ্য সৃষ্ট মারামারির ঘটনায় উভয় পক্ষের লোকজন কম বেশি আহত হয়।এ ঘটনায় আবুল বশর বাদী হয়ে চকরিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এটি তদন্ত দেয়া হয় হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির তৎকালীন পুলিশ পরিদর্শক মাহতাবুর রহমানকে। তদন্তের এক পর্যায়ে মারামারির ঘটনায় আবুল বশর পরিবার আহত হয়ে আর্থিকভাবে কিছুটা ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ায় উভয় পক্ষের সম্মতিতে আপোষ মিমাংসার জন্য বিবাদী পক্ষের কাছ থেকে ক্ষতিপূরণ বাবদ ১২ হাজার টাকা জামানত গ্রহণ করেন বিচার মিমাংসার কাজে নিয়োজিত বিচারক দারুসসালাম রফিক, মোঃ সামসুদ্দিন, সাহাদত হোসেন সহ কয়েকজন বিচারক। ঘটনার কয়েক মাস অতিবাহিত হলেও অদ্যবদি বিচারকগণ ওই ক্ষতিপূরণের টাকা পরিশোধ না করে কালক্ষেপন করতে থাকে বলে অভিযোগ আবুল বশরের। এ বিষয়ে বিচারক দারুসসালাম রফিক জানান, ক্ষতিপূরণের টাকাগুলো আমার কাছে জমা আছে। সীমানা যেহেতু নির্ধারণ হয় নাই তাই, বিবাদী আলমগীরের অভিযোগের ভিত্তিতে টাকা গুলো পরিশোধ করা হয়নি বাদীকে। শালিসি বৈঠকে সীমানা নির্ধারণ হওয়ার পর বাদী ক্ষতিপূরণের টাকা পাবে বলে উভয়ের সম্মতিতে ধার্য্য করা হয়। বিষয়টি চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করলে, তিনি উভয় পক্ষের স্বাক্ষর সহ টাকাগুলো ফেরত দিতে আইসির মাধ্যমে বিচারকদের নির্দেশ দেন।
চকরিয়া সার্কেলের এএসপি মো. তফিকুল আলম বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে আইসি সহ উভয়ই পক্ষকে ডেকে, তাদের সাথে কথা বলে আইসি সাহেবর হাতে কোনধরনের টাকা জমা দেওয়া হয়নি তা নিশ্চিত হওয়া গেছে। সীমানা বিরোধ সামাধান হলে, জরিমানা বাবদ ধার্য্যকৃত জমা টাকাগুলো বিচারকগণ বাদী আবুল বশরকে যথাযথ ভাবে বুঝিয়ে দিতে তিনি বিচারকদের নির্দেশ দেন বলে নিশ্চিত হওয়া যায়।

সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
logo

নিউজ ভিশন বাংলাদেশের একটি পাঠক প্রিয় অনলাইন সংবাদপত্র। আমরা নিরপেক্ষ, পেশাদারিত্ব তথ্যনির্ভর, নৈতিক সাংবাদিকতায় বিশ্বাসী।

সম্পাদক ও প্রকাশক : মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম

ঢাকা অফিস: ইকুরিয়া বাজার,হাসনাবাদ,দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ,ঢাকা-১৩১০।

চট্টগ্রাম অফিস: একে টাওয়ার,শাহ আমানত সংযোগ সেতু রোড,বাকলিয়া,চট্টগ্রাম |

সিলেট অফিস: বরকতিয়া মার্কেট,আম্বরখানা,সিলেট | রংপুর অফিস : সাকিন ভিলা, শাপলা চত্ত্বর, রংপুর |

+8801789372328, +8801829934487 newsvision71@gmail.com, https://newsvisionbd.com
Copyright@ 2021 নিউজ ভিশন |
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ‌্য মন্ত্রণালয়ে আবেদিত ।