পার্কভিউ ও রয়েলকে সম্পূর্ণ কোভিড হাসপাতাল ঘোষণা বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিকেও চলবে চিকিৎসা।

নিউজ নিউজ

ভিশন ৭১

প্রকাশিত: ১:৪৪ পূর্বাহ্ণ, মে ৩১, ২০২০

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি
চট্টগ্রাম নগরীতে বেসরকারী হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোতে সব ধরনের রোগী ভর্তি করা হবে। হাসপাতালগুলোতে থাকবে কোভিড ও নন-কোভিড জোন। যাতে কোন রোগী হাসপাতাল থেকে চিকিৎসাসেবা না পেয়ে ফেরত না আসে। ৪ সদস্যের একটি টীম এই চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম তদারকী করবে। চিকিৎসাসেবা কার্যক্রমে যাতে কোন ধরনের ব্যাঘাত না ঘটে সেব্যাপারে সব ধরনের সহযোগিতায় আইন শৃংখলা বাহিনী তাদের পাশে থাকবে। আজ শনিবার দুপুরে নগরীর সার্কিট হাউসে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের সাথে বেসরকারী হাসপাতাল ও ক্লিনিক মালিকদের সমন্বয় সভায় হাসপাতাল মালিকরা চিকিৎসা ছাড়া কোন রোগী ফেরত যাবে না বলে মেয়রকে কথা দেন। সভায় নগরীর পার্কভিউ ও রয়েল হাসপাতালকে সম্পুর্ণ কোভিড হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার এ বি এম আজাদ। এসময় ডিজিএফআই কমান্ডার ব্রি.জেনারেল কবির আহমদ সিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ মাহাবুবর রহমান, বিভাগীয় ¯^াস্থ্য দপ্তরের উপ-পরিচালক (দায়িত্বপ্রাপ্ত) ডা. মো. মোস্তফা খালেদ, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার শংকর রঞ্জন সাহা, চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মিজানুর রহমান, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর)বিজয় বসাক,মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, বিএমএ চট্টগ্রাম সভাপতি ডা. মুজিবুল হক খান, সাধরণ সম্পাদক ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধরী, পার্কভিউ হাসপাতালের একেএম রেজাউল করিম, রয়েল হাসপাতালের ডা. আরিফুল আমিন, ডা. নুরুল আমিন, ন্যাশনাল হাসপাতালের ডা. মোহাম্মদ ইউসুফ, ডেল্টা হাসপাতালের ডা. মোহাম্মদ অহিদুর আলম, সিএসসিআরের ডা. আবদুল কাদের, ডা. সালাউদ্দিন, সিএসটি হাসপতালের ডা. নাজমুল হক খান, ডা.রিয়াদ মাহমুদ চৌধুরী, মেডিকেল সেন্টারের ডা. রাজা বড়–য়া, সার্জিস্কোপের ডা. এটিএম মোহাম্মদ মোজাস্মিম উপস্থিত ছিলেন।
সিটি মেয়র বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক মালিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, চট্টগ্রাম আমাদের জন্মস্থান। চট্টগ্রাম ও চট্টগ্রামের মানুষকে আমরা ভালোবাসি। মহামারি এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যারা মৃত্যুবরণ করছেন তারা আমাদেরই ভাই-বন্ধু। আমরা ১৯৭১ সালে পশ্চিম পাকিস্তানীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে যেমন দেশ স্বাধীন করেছি। তখন সকল বাঙালির স্বার্থ এক ও অভিন্ন। ব্যক্তিস্বার্থে কেউ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেননি। তেমনি আজকের এই করোনাকালও একটি দুর্যোগকালীন সময়। সকলের সম্মিলিত প্রয়াসে এই দু:সময় সফলভাবে অতিক্রম করবো। তিনি নগরবাসীকে যার যার সামর্থানুসারে করোনা আক্রান্তদের পাশে মানবিকতার হাত প্রসারিত করার আহবান জানান। এই সময় তিনি সরকারী হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারী হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোকেও সরকারি প্রণোদনার জন্য সুপারিশ করবেন বলে হাসপাতাল মালিকদের আশ্বাস দেন। যাতে হাসপাতাল ক্লিনিকের পাশাপাশি সেখানে কর্মরত ডাক্তার, নার্স ও অন্যান্য সকল কর্মচারীরাও উপকৃত হতে পারেন।