পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবি উপলক্ষে পথ শিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ৭:৪২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১০, ২০১৯

নুরুল ইসলাম নূর :

আজ গোটা জগতের মুসলমানদের ভালোবাসা আর উচ্ছ্বাসে একাকার হওয়া মন-প্রাণ আকুল করা দিন। উৎসবের রোশনাইঘেরা ১২ রবিউল আউয়াল। আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবি (স.)। বিশ্ব মানবতার মুক্তির দিশারি সর্বশ্রেষ্ঠ নবি হযরত মোহাম্মদ (স.)-এর জন্ম ও ওফাত দিবস। আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবি উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রবিউল ইসলামের সৌজন্যে পথ শিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়। খাবার বিতরণে অংশ নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নুরুল আবছার ও নুরুল ইসলাম নূর।

হযরত মোহাম্মদ (স.) ইতিহাসের অতুলনীয় ব্যক্তিত্ব। অন্য ধর্মাবলম্বীরাও তাকে মানবজাতির সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ সংস্কারক হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বী বিখ্যাত পণ্ডিত মাইকেল এইচ হার্ট তার বহুল আলোচিত ‘দ্য হান্ড্রেড’ গ্রন্থে হযরত মোহাম্মদ (স.)-কে ‘সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ’ হিসেবে স্থান দিয়েছেন। ব্রিটিশ লেখক জর্জ বার্নার্ড শ বলেছেন, ‘এই অশান্ত পৃথিবীতে তার মতো একজন মানুষের প্রয়োজন। তার আগমনে যে বিপ্লবের সূচনা হয়েছিল, দুনিয়া জুড়ে তা বিস্তৃত হয়েছে।’

বিশ্বনবির জন্মদিন ও ওফাত দিবস উপলক্ষে প্রতি বছর ১২ রবিউল আউয়ালকে অতীব গুরুত্বপূর্ণ দিন হিসেবে পালন করে মুসলিম বিশ্ব। এ উপলক্ষে তারা সীরাতুন্নবির (স.) আলোচনা, দরুদ পাঠ, দান-সদকা করে থাকেন। মিষ্টি, খাবার প্রভৃতি তৈরি করে বিতরণ করেন। ভক্তি ভরে দরুদ পাঠে মশগুল থাকেন। বরিউল ইসলাম বলেন, হযরত মোহাম্মদ (স) ছিলেন মানবতার পরম বন্ধু। তিনি সবসময়ই গরীব দুঃখী মানুষের খবর নিতেন এবং তাদেরকে সাহায্যে করতেন। আমি রাসুল (স) এর জীবনী থেকে শিক্ষা নিয়ে আজ ঈদে মিলাদুন্নবি উপলক্ষে পথ শিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ করি। তিনি আরো বলেন, সকল সামর্থ্যবান ব্যক্তিদের উচিত পথ শিশুদের পাশে দাড়ানো।