দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ।

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ৪:১৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯

রাঙ্গামাটি সদর প্রতিনিধি :

বাংলাদেশের ৮ টি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এর মধ্যে রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় একটি।
রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ২০০১ সালে প্রতিষ্ঠিত হলেও ২০১৪-২০১৫ শিক্ষাবর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাকার্যক্রম চালু হয়। ২০১৪-২০১৫ শিক্ষাবর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়টি নানা ঝামেলায় দেরিতে কার্যক্রম শুরু করেছিল। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসের জন্য ঝগড়াবিল মৌজার ৬৪ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। এই স্থানে ২২৭ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি মাস্টার প্ল্যান তৈরি করে কাজ শুরু করা হবে।
দীর্ঘ ১৭ বছর পার হয়ে যাওয়ার পরেও এত দিনে স্থায়ী ক্যাম্পাসে যেতে না পারায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ।

গত ১৫ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়টির ১৭ বছরে পা রাখেন। ফলে ১৭ বছরেও স্থায়ী ক্যাম্পাস না পাওয়ায় গত ১৫ জুলাই শিক্ষার্থীরা স্থায়ী ক্যামপাসের দাবিতে শ্রেণীকক্ষে তালা ঝুলিয়ে অনির্দিষ্ট কালের জন্য ক্লাশ পরিক্ষা বর্জন করে মুখে কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধন করে।
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ২মাসের মধ্যে স্থায়ী ক্যামপাসে শ্রেণীকার্যক্রম শুরু করবে বলে শিক্ষার্থীদের আশ্বাস দেন। সম্প্রতি সরেজমিনে স্থায়ী ক্যাম্পাসে গিয়ে দেখা যায় দ্রুত গতিতে ভবনের কাজ চলতেছে। আগামাী মাসের ১ম সপ্তাহের দিকে স্থায়ী ক্যাম্পাসে শ্রেণী কর্যক্রম শুরু করা যাবে বলে আশা করা যাচ্ছে। এই কথা শুনে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সস্তি ফিরে এসেছে। দীর্ঘ এত দিন পর হলেও তারা তাদের প্রাণের প্রিয় রাবিপ্রবি স্থায়ী ক্যাম্পাসে যেতে পারবে। তবে এত আনন্দের মধ্যে স্থায়ী ক্যাম্পাসের নিরাপত্তা নিয়ে কিছুটা ভয়ভীতির মধ্যে রয়েছে শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য চলতি মাসের ১১ তারিখ মানীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা রাবিপ্রবির স্থায়ী ক্যাম্পাসের কাজ দ্রুত শেষ করার নিদের্শ দেন। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালটিতে দুটি বিভাগ রয়েছে। ব্যস্থাপনা বিভাগ ও কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগ। দুই বিভাগে প্রতি বছর ৫০ জন করে মোট ১০০ জন শিক্ষার্থী ভতি করা হয়। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫টি ব্যাচের শিক্ষার্থী রয়েছে। চলতি বছরের শেষের দিকে নতুন আর একটি ব্যাচের এডমিশন পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তবে এই বছর দুই বিভাগে একটি করে মোট দুটি নতুন সাবজেক্ট আসতে পারে।