দায়িত্বের প্রথম ছয় মাসেই এস এম হল পাঠকক্ষ সম্পাদকের বাজিমাত

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ৮:০৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৯

আমজাদ হোসাইন হৃদয়:স্টাফ রিপোর্টার:

অব্যবস্থাপনায় ঠাসা এস এম হলকে সাজাতে কাজ করছেন এস এম হল ছাত্রসংসদ প্রতিনিধিরা। তবে এই ক্ষেত্রে সবার চেয়ে এগিয়ে আছেন পাঠকক্ষ সম্পাদক। গত ১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচনে সম্মিলিত শিক্ষার্থী সংসদ কর্তৃক মনোনীত, শিক্ষার্থীদের প্রত্যক্ষ ভোটে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ (৮৯৯) ভোট পেয়ে এস এম হল ছাত্র সংসদের পাঠকক্ষ সম্পাদক নির্বাচিত হোন হলের আবাসিক ছাত্র সোহরাব হোসেন চৌধুরী (সাগর)।

ইশতেহার অনুযায়ী হলের জীর্ণশীর্ণ পাঠকক্ষকে প্রাণ দিয়েছেন হলের এই প্রতিনিধি। ২৮ বছরের এনালগ রিডিং রুম এখন অনেকটাই আধুনিক এবং যুগোপযোগী রিডিং রুমে পরিণত হয়েছে। আধুনিক টেবিল-চেয়ার সংযোজনসহ অবকাঠামোর সংস্কার করেন। তাছাড়া শিক্ষার্থীদের লাইব্রেরি মুখী করার লক্ষ্যে লাইব্রেরীতে অধিক সংখ্যক বই সংযোজন করেছেন। আধুনিক রিডিং রুম ও লাইব্রেরী উপহার দিতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন হলের এই প্রতিনিধি। বলা যায়- তিনি দায়িত্ব প্রাপ্তের প্রথম ৬ মাসেই রিডিং রুমকে নতুন রূপে সাজিয়েছেন এবং আরো আধুনিক ভাবে সাজাতে কাজ করছেন। জানা যায় পাঠকক্ষের এমন অগ্রগতিতে পাঠকক্ষ সম্পাদকের প্রতি সন্তুষ্ট হয়েছেন এস এম হলের শিক্ষার্থীরা।

এস এম হল পাঠকক্ষের নতুন রূপের কারিগর সোহরাব হোসেন চৌধুরী সাগর কক্সবাজার জেলার পেকুয়া উপজেলার সম্ভ্রান্ত রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। তিনি হল ছাত্রলীগের গ্রন্হনা ও প্রকাশনা সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করছেন। গত ডাকসু নির্বাচনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মনোনীত সম্মিলিত শিক্ষার্থী সংসদের ব্যানারে হল সংসদে পাঠকক্ষ সম্পাদক পদে নির্বাচন করে বিজয়ী হয়েছিলেন।

নিউজ ভিশনকে তিনি জানান, প্রথমে কৃতজ্ঞতা জানাই ডাকসুর জি এস গোলাম রাব্বানী ভাইকে যিনি আমাকে নমিনেশন এবং সমর্থন দিয়ে হল সংসদে দায়িত্ব পালন করার সুযোগ করে দিয়েছেন। আমি চেষ্টা করছি মানসম্মত একটি পাঠকক্ষ উপহার দিতে। ইনশাআল্লাহ মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই হল পরিবারকে ভালো মানের একটি রিডিং রুম এবং লাইব্রেরি উপহার দিয়ে যেতে পারব। এই পথচলায় পরিবারের একজন সদস্য হিসেবে আপনাদের সহযোগিতা ও পরামর্শের সহিত সর্বদা পাশে পাব বলে আমার বিশ্বাস। লাইব্রেরীর আধুনিকায়নসহ আরো বেশ কিছু পরিকল্পনা রয়েছে বলে তিনি জানান। এক্ষেত্রে সকল শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা ও ভালোবাসা কামনা করেন তিনি।