তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থীদের কল্যাণেই নিজেকে উৎসর্গ করে দিচ্ছি-ভিপি রিয়াদ।

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ৬:৩৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

কাওসার আহমেদ: নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রাচ্যের ড্যান্ডি নারায়ণগঞ্জের সরকারি তোলারাম কলেজ এক শান্তির প্রতীক। নেই কোনো বিশৃঙ্খলা,নেই কোনো রাজনৈতিক নেতিবাচক প্রভাব। আর এই শৃঙ্খলার স্তম্ভ হলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের প্রেসিডেন্ট ও সরকারি তোলারাম কলেজের ছাত্র-ছাত্রী সংসদের ভিপি মোঃ হাবিবুর রহমান রিয়াদ। দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি অতি দায়িত্বশীলতার সাথে তোলারাম কলেজের ভিপি পদে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন ক্যাম্পাসের শৃঙ্খলা রক্ষাকারী একটি সুশৃঙ্খল ছাত্র-ছাত্রী সংসদ। তিনি নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব থাকা সত্বেও কোন রাজনৈতিক প্রভাব পড়ে না তোলারাম ক্যাম্পাসে। দল মত নির্বিশেষে সকল শিক্ষার্থীরাই সমান সুযোগ-সুবিধা ভোগ করেন।ছাত্রলীগের মতো একটি এত বড় সংগঠনে যেখানে অনেক জায়গায় কম বেশি রাজনৈতিক আলোচনা সমালোচনা থাকে কিন্তু তোলারাম কলেজে দেখা যায় এক ভিন্ন দৃশ্য, যে দৃশ্য অন্যত্র বিরল। নেই কোনো রাজনৈতিক জবরদস্তি, নেই কোন মিছিল-মিটিংয়ের বাধ্যবাধকতা। ভিপির কঠোরতার কারণে ছাত্রলীগের কেউ কখনো সামান্য বিশৃঙ্খলা করার মত দুঃসাহসও করে না।

মঙ্গলবার সরকারি তোলারাম কলেজ ছাত্র-ছাত্রী সংসদে নিউজ ভিশনের দীর্ঘ এক সাক্ষাৎকারে ভিপি হাবিবুর রহমান রিয়াদ নিউজ ভিশনকে বলেন,” আমি মহানগর ছাত্রলীগের প্রেসিডেন্ট কিন্তু যখন আমি তোলারাম কলেজের ক্যাম্পাসে প্রবেশ করি তখন আর নিজেকে ছাত্রলীগ মনে হয় না । তখন নিজেকে শুধু তোলারাম কলেজের সকল শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি বা অভিভাবক মনে করি। আমি নিজেকে শিক্ষার্থীদের নেতা মনে করি না বরং সবাইকে আমার ভাই-বোন মনে করে যেকোনো প্রয়োজনে তাদের পাশে থাকি।আমার কাছে আজ পর্যন্ত কলেজের কোন শিক্ষার্থী কোন যৌক্তিক দাবি নিয়ে এসে বিমুখ হয়নি । আজ পর্যন্ত কেউ সহযোগিতা চেয়ে খালি হাতে ফিরে যায়নি।দল মত নির্বিশেষে সকল শিক্ষার্থীদের ভালোবাসাই আমার জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন। শিক্ষার্থীদের কল্যাণেই নিজেকে উৎসর্গ করে দিচ্ছি।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি ও সংঘর্ষ অধ্যয়ন বিভাগের ছাত্র ও সরকারি তোলারাম কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী মোঃ মনির হোসেন নিউজভিশনের সাক্ষাৎকারে বলেন, “তোলারাম কলেজে আমি দুই বছর পড়াশোনা করেছি, সেই দুই বছরে কোনদিন ক্যাম্পাসে সামান্য বিশৃঙ্খলা ও দেখি নাই । এটা শুধু রিয়াদ ভাইয়ের মতো একজন সুযোগ্য নেতা ভিপি থাকার ফলেই সম্ভব হয়েছে।” কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীদের থেকে জানা যায়, তাদের কোনো সমস্যা হলে তারা ভিপিকে জানায় এবং ভিপি তার তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেন। এছাড়াও এক জিজ্ঞাসাবাদে কলেজের এইচএসসি মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থী মোঃ আবু নাঈম নিউজভিশনকে বলেন,” “রিয়াদ ভাইয়ের ব্যাপারে অনেক কিছুই বলার আছে। কিন্তু যদি খুব সংক্ষেপে বলি তবে একটা কথাই বলতে হয়, রিয়াদ ভাইয়ের তুলনা হয় না। আমরা এমন একজন নেতা পেয়ে গর্বিত।”

ক্যাম্পাসের এমন শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রেখে সামনের দিকে আরো অগ্রগতির জন্য দৃঢ় প্রতিজ্ঞার কথা ব্যক্ত করেন ভিপি রিয়াদ । সুষ্ঠ-শান্ত এক ক্যাম্পাস উপহার দেওয়া এমন একজন নেতা যেন সব সময়ই পাশে থাকেন , সবসময়ই যেন শান্ত সজীব থাকে কলেজ ক্যাম্পাস ,এমন প্রত্যাশাই সকল শিক্ষার্থীদের।