তৃণমূল নেতাকর্মীদের দাবী- এস এম আবু হায়দারই হোক নৌকার প্রার্থী

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১২:৩৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০

এস.এম বুলবুল আহমদ :

আসন্ন মাতারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে দলীয় প্রতীকে সৎ, যোগ্য ও জনকল্যাণে নিবেদিত প্রার্থী মনোনীত করার দাবী তুলেছে তৃণমূল নেতাকর্মীরা।

আর কয়েকমাস পর’ই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। নির্বাচনে দলীয় নেতাকর্মীরা যার জন্য কাজ করবে তিনি যেন দলের তৃণমূলের নেতাকর্মীদের কাছে গ্রহণযোগ্য হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখার অনুরোধ তৃণমূলের। তাদের আশা যিনি নির্বাচিত হবেন তিনি যেন আগামী পাঁচ বছর সাধারণ জনগণের পক্ষ হয়ে ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনা করবেন এবং সৎ ও জনগণের কল্যাণে নিবেদিত প্রাণ হয়ে কাজ করবেন তা নিশ্চিত করতে হবে। যাতে আগামী পাঁচ বছর এই ইউনিয়ন সঠিকভাবে পরিচালিত হয়।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে জনগণের চিন্তা-ভাবনার শেষ নেই। দলীয় প্রতীকে এমন একজন ত্যাগী নেতাকে মূল্যায়ন করা হোক যিনি ছাত্র রাজনীতি থেকে উঠে এসে বর্তমানে আওয়ামীলীগ সহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে যুক্ত আছেন। যার রাজনৈতিক এবং পারিবারিক সমৃদ্ধি থাকবে।

এর মধ্যে মাতারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তৃণমূল আওয়ামিলীগের নেতাকর্মীদের মাঝে সবচেয়ে আলোচনায় আছেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জননেতা এস.এম আবু হায়দার। যার রাজনৈতিক হাতেখড়ি হয়েছিল তৎকালীন মহেশখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও মাতারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এম. আলতাফ উদ্দীনের হাত ধরে। তিনি স্কুল জীবন থেকে ছাত্র রাজনীতি করে বর্তমানে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগে দায়িত্ব পালন করছেন। ছাত্র জীবনে তিনি মাতারবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক(১৯৯৪), সাধারণ সম্পাদক(১৯৯৪-৯৫), ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক(১৯৯৮-২০০০) এবং পরবর্তীতে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক(২০০২-২০০৬) এর দায়িত্ব পালন করেছিলেন সততা এবং নিষ্ঠার সাথে। তিনি মাতারবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিলে কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়। ২০১২ সাল থেকে তিনি অদ্যাবধি এ দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ক্রিড়া সংগঠনের সাথে ও জড়িত আছেন। তিনি মাতারবাড়ি নাইট রাইড্রার্স যুব উন্নয়ন ক্লাবের উপদেষ্টা মন্ডলির সভাপতি, মাতারবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি, মাতারবাড়ি আইডিয়াল বালিকা বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি, এবং তার মরহুম পিতার স্মৃতি বিজড়িত উত্তর রাজঘাটস্থ আম্বল আলী জামে মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় শাহ মজিদিয়া জাফরুল উলুম তালিমুল কোরআন হেফজখানা ও এতিমখানা প্রতিষ্ঠা করেন এবং এম. আলতাফ উদ্দীন স্মৃতি পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে ও দায়িত্ব পালন করছেন।
বিভিন্ন জনমত জরিপ ও গোয়ান্দা সংস্থার রিপোর্ট জানা যায় তিনি ক্লিন ইমেজের। দল ক্ষমতায় তাছাড়া পদে রয়েছেন শত লোভ লালসার দুরে টেলে নেত্রীর প্রতি অবিচল আস্থা রেখে সততার সহিত দাযিত্ব পালন করে চলছেন অদ্যাবধি।

মাতারবাড়ী সাধারণ জনগণও কাছে তিনি খুব গ্রহণযোগ্য তা দলমত নির্বিশেষে সবাই স্বীকার করে।
তিনি মাতারবাড়ি প্রখ্যাত আলেমদ্বীন আলহাজ্ব মাওলানা জাফর আহমদ মজিদি সাহেবের সুযোগ্য সন্তান। মাতারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি মাতারবাড়ি মাটি ও মানুষের প্রিয় নেতা এম. আলতাফ উদ্দীনের ছোট ভাই। তিনি এম. আলতাফ উদ্দীনের রাজনৈতিক শিক্ষা অর্জন করেছেন।

এস. এম আবু হায়দার মহেশখালী-কুতুবদিয়ার মাটি ও মানুষের প্রিয় নেতা, যার উন্নয়নের ছোয়ায় দুই দ্বীপ উপজেলা এখন জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের রূল মডেল হিসেবে পরিণত হয়েছে, সমুদ্র জনপদে জননন্দিত জননেতা দ্বীপরত্ন আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক এম. পি মহোদেয়ের অত্যন্ত আস্থাভাজন। তিনি কক্সবাজার জেলা আওয়ামিলীগের সম্মানিত সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মুস্তফা এবং কক্সবাজার জেলা আওয়ামিলীগের সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমানের একান্ত স্নেহধন্য।

তৃণমূল আওয়ামিলীগের কাছে তিনি অনেক বেশি গ্রহণযোগ্য। কারণ তিনি তৃণমূল আওয়ামিলীগের সুখে-দুঃখে সবসময় তাদের সাথেই থাকেন। তৃণমূল আওয়ামিলীগের কাছে রাজনৈতিক রূল মডেল হিসেবে ও অত্যধিক সমাদৃত। তারুণ্য নির্ভর দল গঠনে তাঁর ভুমিকা অনস্বীকার্য।

করোনা পরিস্থিতি যখন পুরো বিশ্ব বিপর্যস্ত ঠিক তখন সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের কাছে দূত হয়ে এলেন এস.এম আবু হায়দার। মাতারবাড়িতে বিভিন্ন শ্রেণির পেশার মানুষের পেশা অনুযায়ী তালিকা তৈরি করে কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন। তার ত্রাণ সহায়তা থেকে জেলে, টমটম চালক, সিএনজি চালক, লবণ শ্রমিক, দিন মজুর, নাপিত সহ কর্মহীন কোন পেশার মানুষ বাদ যায়নি।

খেলাধুলার প্রতি তিনি থাকেন সবসময় সরব। কারণ আমাদের যুব সমাজকে অন্যায় অপরাধ মূলক কর্মকান্ড এবং মাদক থেকে বিরত রাখতে একমাত্র মাধ্যম হল ক্রিড়া। মাদকমুক্ত যুব সমাজ গঠনে তার পৃষ্ঠপোষকতায় মাতারবাড়িতে প্রতিবছর গোল্ডকাপ ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। তিনি মাতারবাড়ি খেলোয়াড় সমিতির শুভাকাঙ্ক্ষী হিসেবে সবসময় তাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা এবং সার্বিক সহযোগিতা করেন।