টাকা দিয়ে সম্পাদক হওয়া যায় না, লাগে যোগ্যতা – পিআইবি’র মহাপরিচালক

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ২:১৪ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০২০

রাফিউল ইসলাম (রাব্বি) স্টাফ রিপোর্টার:
টাকার জোরে রাতারাতি সংবাদপত্রে অনেকেই সম্পাদক হয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ-পিআইবি’র মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদ। তিনি বলেছেন, ‘টাকা থাকলেই সম্পাদক হওয়া যায় না। সম্পাদক হতে যোগ্যতা লাগে। অনেকেই টাকার জোরে রাতারাতি সম্পাদক হয়েছে। যারা সম্পাদক হয়েয়েন , তাদের বেশির ভাগই যোগ্যতা নেই। এনারা নিজেদের সুবিধার জন্য সংবাদপত্রকে ব্যবহার করছে’।

রোববার (১৮ অক্টোবর) দুপুরে রংপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে তিন দিনব্যাপী শুরু হওয়া অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টিং বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। রংপুরে বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়াতে কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে এই প্রশিক্ষণের আয়োজন করেছে প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ-পিআইবি।

সভাপ্রধান হিসেবে পিআইবি ডিজি বলেন, ‘সাংবাদিকরা এখন শ্রমিক হিসেবে কাজ করছে। তাদের জীবনমানের উন্নয়নের সাথে সাথে পেশাগত উন্নয়ন ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। বাংলাদেশ ছাড়া পৃথিবীর কোনো দেশে সরকারিভাবে সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয় না। পিআইবি দেশের সবখানে প্রশিক্ষিত ও দক্ষ সাংবাদিক গড়ার ক্ষেত্রে সহায়ক হিসেবে কাজ করছে’।

তিনি আরও বলেন, ‘সাংবাদিকরা শুধু প্রতিদিনের ঘটে যাওয়া তথ্য নিয়েই রিপোর্ট করবে না। অজানা তথ্য যা কেউ প্রকাশ করতে চায় না, সেই রহস্যের গভীরে ঢুকে অনুসন্ধান করে তথ্য উন্মোচন করা যায়, এমন অনুসন্ধানমূলক রিপোর্ট করতে হবে। যে পত্রিকা বা মিডিয়া যত বেশি অনুসন্ধানী রিপোটিং করতে পারবে, তাদের ততবেশি পাঠক সৃষ্টি হবে’।

রংপুর অঞ্চলের মানুষ মঙ্গা মুক্ত হলেও এখনো অন্যান্য অঞ্চলের দিক থেকে পিছিয়ে আছে বলে উল্লেখ করেন পিআইবি মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদ। তিনি বলেন, ‘এখানকার মানুষের কাঙ্খিত অর্থনৈতিক মুক্তি আসেনি। প্রাচীন এই অঞ্চলে কলকারখানা গড়ে উঠেনি। এখনো শিল্পায়ন হয়নি। অথচ ইতিহাস ঐহিত্য সংগ্রামে বহু সমৃদ্ধ রংপুর। এখানে অনেক কিছু হবার সম্ভাবনা রয়েছে। পরিকল্পিতভাবে রংপুরকে সাজাতে সাংবাদিকদের লেখনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। যা অতীতেও ছিল’।

প্রশিক্ষণের আনুষ্ঠানিকতা পর্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রংপুর প্রেসক্লাব এর সভাপতি রশীদ বাবু, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রফিক সরকার। প্রথম দিনে অনুসন্ধানী রিপোর্টিং এর সমস্যা, সম্ভাবনা, করণীয়, অনুসরণীয় বিষয়সহ বিভিন্ন দিক নিয়ে তথ্যমূলক আলোচনা করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পান্ডে।