জেনে নিন জমি খরিদ করনে জ্ঞাতব্য কিছু বিষয়াদি

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২৫, ২০২০

মোঃ মজিবর রহমান

বহু পরিচিত স্বজন সুজনের ফোন পাই,অনেক অপরিচিত নম্বরে ও যৌক্তিক কারনে উত্তর দিতে ব্যর্থ হই।তাই বিবেকের তাড়নায় সকলের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি যে,নতুন বা অপরিচিত স্থানে জমি খরিদ করতে হলে, প্রথমে জমিটি সরোজমিনে শনাক্ত করতে হবে,পরে সর্বশেষ নক্সার সাথে মিলিয়ে নক্সার দাগ বা প্লট নম্বর স্মরণে রাখতে হবে।
অঞ্চলভেদে শনাক্তকৃত দাগ নম্বরের মালিকানা আর এস,এস এ এবং শেষোক্ত জরিপ বি আর এস বা বি এস চেইন মিলিয়ে দেখতে হবে।মালিকের খরিদকৃত হলে বিক্রেতার কাগজপত্র একই ভাবে যাঁচাই করে সংশ্লিষ্ট তহশীল বা ইউ ভূ স ক অফিসে বা এ সি(ল্যান্ড)অফিসে নামজারি বা মিউটেশন ও খাজনাদি চলে কি না জানতে হবে, আধুনিক প্রতারনা হতে রক্ষা পেতে প্রয়োজনে খাস
ভি পি পরিক্ষা করতে হবে।কোন কোন অঞ্চলে চলমান জরিপ ও পূর্ববর্তী জরিপের কাগজপত্র ও নক্সা সরেজমিন একই ভাবে যাঁচাই করতে হবে।ঢাকা ও আশে পাশের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য ক্ষেত্রে চলমান জরিপ বা আর এস, এস এ জরিপের একই ভাবে নক্সা খতিয়ান ও সরেজমিন মিলিয়ে পরিক্ষা করতে হবে।রাজধানী ঢাকা বা ঢাকা সিটি কর্পোরেশনে সিটি জরিপ ও পূর্ববর্তী জরিপের কাগজপত্রাদি একই ভাবে সরেজমিন নক্সা খতিয়ান মিলিয়ে নিতে হবে। ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের ভূমির সিটি জরিপ অনলাইনে পাওয়া যাবে।কোন জমির মাননীয় আদালতের ডিক্রি বা অন্যান্য অগ্রক্রয়ন সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে আদালতের বিজ্ঞ আইনজীবির পরামর্শ বা ভালো বুঝবান ব্যক্তির সহায়তা নেয়া যেতে পারে।জমির মূল্য বৃদ্ধির কারনে বিভিন্ন রকম প্রতারনার পালায় পড়ে কেহ তাঁর কষ্টার্জিত ঘাম জড়ানো অর্থের বিনিময়ে জমি কিনে ক্ষুয়িয়ে না ফেলেন,এ জন্য আমার এ ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা।সকলের সুখশান্তি কামনা করি এবং দ্রুত করোনা মুক্ত ধরনী কামনা করি।সকলের কাছে দোয়া প্রার্থী।
————-
সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসার।
কেরানীগঞ্জ ঢাকা।
বাংলা বিভাগ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।