চকরিয়ায় হস্তশিল্প ও দেশীয় পণ্য উন্নয়ন এসোসিয়েশনের আত্ম প্রকাশ

নিউজ নিউজ

ভিশন ৭১

প্রকাশিত: ১:৩৪ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১২, ২০২০

বার্তা পরিবেশকঃ
আধুনিক প্রযুক্তিতে চকরিয়ার নারী উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় ভূমিকা রাখতে “হস্তশিল্প ও দেশীয় পণ্য উন্নয়ন এসোসিয়েশন চকরিয়া” নামে নতুন একটি সামাজিক নারী উন্নয়ন কমিটির আত্ম প্রকাশ হয়েছে।
নারীদের জীবনযুদ্ধ সবসময়ই পরিবার থেকে শুরুকরে সমাজ ও দেশের উন্নয়নের চাবিকাঠি হয়েছে যুগ যুগান্তরে। এলাকা ভিত্তিক ভাবে নারীদের এই এগিয়ে যাওয়াকে অব্যাহত রাখতে চকরিয়া উপজেলার সকল গ্রাম ও ইউনিয়নের মেয়েদের প্রযুক্তিগত জ্ঞানের আলোকে ই-কমার্স এর মাধ্যমে অর্থাৎ ঘরে বসে নিজেদের হাতে তৈরী যে কোন পণ্য কিংবা দেশীয় যে কোন পণ্য অনলাইনে ব্যবসার মাধ্যমে নিজেকে স্বাবলম্বী করে নিজের জীবনকে, নিজের পরিবারকে সর্বোপরি নিজের দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার অবদান রাখারমত করে গড়ে তুলতে, চকরিয়ার মেয়ে নাঈমা সিফাত যিনি চকরিয়া কোরক বিদ্যাপীঠ থেকে এস এস সি শেষে ঢাকার স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান গুলোতে উচ্চশিক্ষা অর্জন করে বিভিন্ন বহুজাতিক কোম্পানি সহ নানান সমাজকল্যাণ সংগঠন গুলোর প্রতিনিধিত্ব করে যাচ্ছেন যার ধারাবাহিকতায় নিজের এলাকার একদল স্বপ্নবাজ তরুন উদ্যোক্তা আসমাউল হুসনা সাজিয়া, শারমিন জান্নাত ফেন্সি, সুরাইয়া নওরিন, ইশরাৎ হোসাইন এলিদের সহোযোগিতায় প্রতিভাবান শত শত মহিলাদের নিয়ে শুরু করেছেন এই “হস্তশিল্প ও দেশীয় পণ্য উন্নয়ন এসোসিয়েশন “। Handicraft Development Association Chakariya শুরু করতে যাচ্ছে অনলাইন ক্লাস, চকরিয়ার সকল মহিলাদের জন্য ক্লাস গুলো ফেসবুক গ্রুপটি থেকেই সরাসরি নেয়া হয়। এই মূল্যবান ই-কমার্স & টেক্নিক্যাল স্কিল ডেভেলপমেন্ট ট্রেনিং এ অংশ গ্রহনের জন্য গ্রুপে জয়েন করলেই সকল ট্রেনিং পেয়ে যাবেন এই অঞ্চলের উদ্যেক্তা মহিলাগণ। পাশাপাশি উদ্যোক্তা কোড গ্রহণের মাধ্যমে নিজদের পণ্য প্রদর্শন করে ব্যাবসা প্রসারের যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে।
অনেক উদ্যোক্তা মহিলাগন গ্রুপটির ফাউন্ডার ডিরেক্টর নাঈমা সিফাত কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। চকরিয়ার মেয়ে হয়ে রাজধানিতে গিয়ে উচ্চশিক্ষা অর্জন ও উন্নত জীবন পেয়ে নিজের এলাকাকে ভূলে না গিয়ে চকরিয়ার স্বপনবাজ দের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। যারা উনাকে সাপোর্ট দিচ্ছেন ম্যানেজিং কমিটির এডভাইজার শারমিন জান্নাত ফেন্সি, সি ই ও আসমাউল হুসনা সাজিয়া, কো-অর্ডিনেটর ইসরাত হোসাইন, সিএফ ও সুরাইয়া নওরিন। তাদের সাহসিকতায় তারা চকরিয়ায় প্রথমবার প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে নারীকল্যান এসোসিয়েশন এর যাত্রা শুরু হলো।