ইমাম সমিতির শোক

চকরিয়ায় বৃদ্ধাকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় আপন ভাইসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১:১১ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৭, ২০১৯

সাঈদী আকবর ফয়সাল,চকরিয়া:

চকরিয়া উপজেলায় কৈয়ারবিল ইউনিয়নের মধ্যম কৈয়ারবিল নয়াপড়া এলাকায় জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন (৫৬)কে কুপিয়ে হত্যা ঘটনায় আপন ভাইসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। নিহতের মেঝো ছেলে মো.এমদাদ উল্লাহ বাদী হয়ে চকরিয়া থানায় মামলাটি করেন। প্রধান আসামী বেলাল উদ্দিনকে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় জনতা আটক করে থানা পুলিশকে সোপার্দ করে। মামলায় তাকে প্রধান আসামী করা হয়েছে। নিহতের আপন বড় ভাই মাস্টার মামুনুর রশিদকে এই মামলায় ২নম্বর আসামি করা হয়েছে। রবিবার (৬ সেপ্টম্বর) দুপুরে আদালতে বেলালের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে। এজাহারভুক্ত অন্যান্য আসামীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের টিম মাঠে কাজ করছে।
এদিকে, রবিবার সকাল ১০টার দিকে নিহত মরহুম হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিনের নামাজে জানাযা কৈয়ারবিল উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে সম্পন্ন হয়। জানাযা শেষে তাকে স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। মরহুমের পরিবার পরিজনের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ইমাম সমিতি চকরিয়া উপজেলা শাখার সভাপতি আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মাওলানা রুহুল কুদুছ আনোয়ারী আল আজহারী, সহসভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা আবুল কালাম মুরাদ, সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক মাওলানা কফিল উদ্দিন এমএ, চকরিয়া পৌরসভা ইমাম সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা কফিল উদ্দিন ফারুক, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মাওলানা কুতুব উদ্দিন হেলালী, সুপার মাওলানা নুরুল হোছাইন, সুপার মাওলানা নুরুল আবছার ছিদ্দিকী, মাওলানা ক্বারী মোহাম্মদ আলী খান প্রমূখ।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হাবিবুর রহমান বলেন, দুই ভাইয়ের জায়গা-জমির বিরোধের জের ধরে এই হত্যাকান্ডটি হয়। এ ঘটনায় হাফেজ মাওলনা রুহুল আমিনের ছেলে বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন। সকল আসামীকে গ্রেফতারের আওতায় আনা হবে। ৫ অক্টোবর সকাল ৯টার দিকে উপজেলার কৈয়ারবিল ইউপির ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যম কৈয়ারবিল গ্রামে হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। তিনি ওই এলাকার মৃত আমিন উল্লাহ’র ছেলে এবং কৈয়ারবিল মখজনুল উলুম মাদারাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক।##