গাজীপুর জেলার প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের ৩০ লাখ ৯৫ হাজার টাকার অনুদান প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ২:২৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৯, ২০২০

শামসুল হুদা লিটন, কাপাসিয়া,গাজীপুর থেকেঃ

করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর তার আওতাধীন কর্মকর্তা , শিক্ষক ও কর্মচারীগণের বাংলা নববর্ষ বৈশাখী ভাতার ২০% অর্থ প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জমা প্রদানের যে মানবিক আহবান জানিয়েছেন তা বাস্তবায়নে সবার আগে এগিয়ে এসেছেন গাজীপুর জেলার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক- কর্মচারী ও জেলা, উপজেলার শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ।

এ মহতি উদ্যোগে স্বত:স্ফূর্ত সাড়া দিয়ে অতি অল্প সময়ে গাজীপুর জেলার ০৬টি উপজেলার সকল কর্মকর্তা, শিক্ষক ও কর্মচারীগণের এবং গাজীপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের সকল কর্মকর্তা, কর্মচারীগণের সর্বমোট ৩০ লাখ ৯৫ হাজার টাকা ডিজি’ র একাউন্টে জমা দেয়া হয়েছে।
গাজীপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ মোফাজ্জল হোসেন জানান, শিক্ষা অধিদপ্তরের ডিজি মহোদয়ের আহবানে সাড়া দিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ইতোমধ্যেই গাজীপুর জেলা শিক্ষা পরিবারের বৈশাখী ভাতার ২০ ভাগ অর্থ জমা দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে –
১) ডিপিইও অফিসের কর্মকর্তা- কর্মচারীদের ১৪১০০.০০ টাকা
২) কালিয়াকৈর উপজেলার শিক্ষক – কর্মচারী – ৪৯৯৩৫৫.০০ টাকা
৩) কাপাসিয়া উপজেলার শিক্ষক – কর্মচারী ৬৭২০০০.০০
৪) শ্রীপুর উপজেলার শিক্ষক – কর্মচারী ৬৫৪৮৩৬.০০
৫) গাজীপুর সদর উপজেলার শিক্ষক – কর্মচারী- ৬৩৪৯৫০.০০
৬)কালীগঞ্জ উপজেলার শিক্ষক – কর্মচারী ৪৯৫৮৮৭
৭) টংগী থানার শিক্ষক – কর্মচারীগণ ১২৪৫৫৪.০০ টাকা সহ মোট ৩০ লাখ ৯৫ হাজার টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জমা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, জাতির এ ক্রান্তিলগ্নে এ মহতী কাজের জন্য আমি গাজীপুরের সকল উপজেলার সকল সম্মানিত ইউইও,এইউইও,প্রধান শিক্ষক,সহকারী শিক্ষক ও কর্মচারীগণকে জানাই গভীর কৃতজ্ঞতা ও শ্রদ্ধা।
ঘাগটিয়ার চালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান মনির , পাবুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোছলিমা আক্তার সুইটি, ফুলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুল আলম খান, চাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এমদাদুল হক আরমান সহ অনেক প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, জাতির ক্রান্তিলগ্নে করোনা ভাইরাস মোকাবেলা য় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে নিজ উৎসব ভাতার টাকা প্রদান করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি এবং অন্তরে সুখানুভূতি অনুভব করছি। তারা এ মহতি উদ্যােগ নেয়ার জন্য ডিজি ও ডিপিইও ‘ র প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।