খাসিয়ামারা নদীতে পুলিশের মাইকিং : বালুমহাল ইজারা না দেওয়ার দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ৭:১২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৭, ২০২০

আশিস রহমান ::

দোয়ারাবাজারের খাসিয়ামারা নদীর বালু মহাল ইজারা না দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের আলীপুর বাজারে খাসিয়ামারা নদীর দুই তীরের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাবাসীর উদ্যোগে ও আলীপুর সমাজকল্যাণ পরিষদের সার্বিক সহযোগিতায় আয়োজিত মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন বৃহত্তর লক্ষীপুর ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান মাস্টার, সুরমা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মামুনুর রশীদ, নূরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহম্মদ মশিউর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা সফি উদ্দিন, আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বজলুর রহমান, ইউপি সদস্য আলী নূর, ইউপি সদস্য আব্দুল কাদির, সুরমা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সফিকুল ইসলাম, ব্যবসায়ী আসক আলী, আব্দুর রহিম, আব্দুল করিম, হাবিবুর রহমান, আলীপুর সমাজকল্যাণ পরিষদের সভাপতি মাহমুদুর রহমান রাসেল, সহসভাপতি জামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ প্রমুখ।
বক্তব্যে বক্তারা এলাকার প্রাকৃতিক পরিবেশ ও জনজীবনের বৃহত্তর স্বার্থে প্রশাসনের নিকট খাসিয়ামারা নদীর বালু মহাল অনির্দিষ্ট কালের জন্য ইজারা বন্ধ রাখার দাবি জানিয়ে বলেন, কয়েক বছর ধরে অবাধে বালু উত্তোলনের ফলে খাসিয়ামারা নদীর প্রাকৃতিক পরিবেশের স্বাভাবিক ভারসাম্য বিনষ্ট হয়েছে। পরিবেশের দিক বিবেচনা না করেই প্রতি বছর সরকারি ভাবে বালু মহাল ইজারা দেওয়া হচ্ছে। নদীর তীর কেটে বালু উত্তোলন করায় খাসিয়ামারা নদী ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করেছে। নদী ভাঙনে হুমকির সম্মুখীন তীরবর্তী ফসলি জমি, হাটবাজার, বসতভিটাসহ বিস্তীর্ণ এলাকা। স্থানীয়দের দাবি উপেক্ষা করে প্রতিবছর খাসিয়ামারা বালু মহাল ইজারা দেওয়ায় প্রতিবাদ জানান ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন বক্তারা।

এর আগে সকাল দশটায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে স্থানীয়দের সাথে দোয়ারাবাজার থানা পুলিশের পক্ষ থেকে মতবিনিময় করা হয়। পরে এসআই রাকিবুল ইসলাম ও এসআই সজিব দত্তের নেতৃত্বে দোয়ারাবাজার থানা পুলিশের উদ্যোগে খাসিয়ামারা নদীতে বালু-পাথর উত্তোলন ও পরিবহন নিষিদ্ধ ঘোষণা করে আলীপুর খেয়াঘাট থেকে রবার ড্যাম ও নূরপুর পর্যন্ত নৌকাযোগে মাইকিং করা হয়।