ঢাকাবুধবার , ২৪ এপ্রিল ২০২৪
  1. সর্বশেষ

আটোয়ারীতে বিচার চেয়ে ছাত্র ছাত্রীদের মানববন্ধন

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:১১ পূর্বাহ্ণ

Link Copied!

আবুতৌহিদ, আটোয়ারী, পঞ্চগড়:

পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারী উপজেলায় ১১ই ফ্রেবুযারী বলরামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে বিচারের দাবিতে ছাত্র ছাত্রীদের মানব বন্ধন পালন।।

জানা গেছে, ৮ই ফ্রেবুয়ারী বলরামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ২০২৪ এস,এস,সি ব্যাচের বিদায় ও ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র ছাত্রীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠান হয়।।

অনুষ্ঠানের পরে দিনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক আইডি থেকে একটি স্ট্যাটাস ও নিউজ প্রিন্ট দেখা যায় স্ট্যাটাস ও পত্রিকার শিরোনাম ছিল-” খাবার নিয়ে কারাকারি,খাবার পেলনা ১০০শিক্ষার্থী”

“অনেক নবীনরা পায়নি ফুলের মালা, যে ফুলের মালা দিয়ে বরণ তার মুল্য (১)এক টাকা,স্কুলের সুনাম কি নষ্টের পথে।।
যা দেখে ছাত্র ছাত্রীরা ক্ষিপ্ত হয়ে বিদ্যালয়ে জড়ো হয়ে স্লোগান তুলে মুখরিত করে বিচারে দাবিতে।

বিচার চাই বিচার চাই বলে বিদ্যালয় প্রাঙ্গন উত্তপ্ত।
এ ব্যাপারে দশম শ্রেণির ছাত্র সিমান্ত বলেন
সেদিন আমাদের স্কুলে তেমন কেন কিছু হয় নি,সকলে ফুলের মালা পেয়েছে এবং খাবার প্যাকেট।
আমরা বিচার চাই আমাদের স্কুলের সুনাম নষ্ট করার জন্য কেন এমন ভুয়া বানোয়াট পোষ্ট করবে। আমাদের প্রধান শিক্ষক স্যার ও স্কুলের সভাপতি মহোদয়কে বিচার দিয়েছি ওনারা বলছেন বিচার করবেন,আমরা সাত দিন দেখবো, বিচার না হলে আমরা রাস্তায় নামবো মানববন্ধন করবো।

অনেক শিক্ষার্থী বলেন, যা লিখছে তা ভুয়া আমাদের স্যার ও স্কুলের সুনাম নষ্ট করার জন্য আমরা বিচার চাই।।

বলরামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, বলরামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নামে বোদা বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের কথিত সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক আব্দুর রহমানের মিথ্যা,বানোয়াট ও বিভ্রান্তিমুলক অপপ্রচারের প্রতিবাদে সকল ছাত্র-ছাত্রীরা ক্লাস বন্ধ করে প্রতিবাদ মিছিল বের করে।পরে ইউনিয়ন পরিষদ চত্তরে চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠান সভাপতি আলহাজ্ব দেলোয়ার হোসেনের কাছে বিচার দাবি করে প্রতিবাদী স্লোগান তুললে পরিস্থিতি শান্ত করতে চেয়ারম্যান মহোদয় আমি সহ কমিটির সদস্য ও অন্যান্য শিক্ষকদের সহযোগিতায় ছাত্রদের বুঝিয়ে ক্লাসে ফিরে যাওয়ার ব্যাবস্থা করি।।

স্কুলের সভাপতি বলরামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব দেলোয়ার হোসেন বলেন,
বিদ্যালযে সকল আন্দোলনকারী ছাত্র ছাত্রীদের বিষয় টি আমি নিজেই কঠোর ব্যবস্থা নিবো সতত্য যাই করে বলে শান্ত করে ক্লাশে ফিরিয়ে যেতে বলি।।

আসলে ঘটনা টা খুবই দু:খজনক একটা সুনামধন্য বিদ্যালয়ের নামে এমন ভুয়া মিথ্যা বানোয়াট ছড়া কোন ভাল মানুষের কাজ না। সেদিন আমি উপস্থিত ছিলাম তেমন কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটেনি।।

এমন ঘটনা কেন ঘটলো এবং কেনই বা সে স্ট্যাটাস দিলে বিষয় টি ভাল করে খতিয়ে সমাধান করার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।।

43 Views

আরও পড়ুন