কিংবদন্তী সানা মিরের বিদায় ঘোষণা

নিউজ নিউজ

ভিশন ৭১

প্রকাশিত: ৪:৩১ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২৬, ২০২০

মুহা. ইকবাল আজাদ, ক্রীড়া প্রতিবেদক।
পাকিস্তান প্রমীলা ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক সানা মির আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন। গতকাল দীর্ঘ ১৫ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের ইতি টেনেছেন এই অলরাউন্ডার। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেও আরও কিছুদিন ঘরোয়া লীগে খেলবেন সানা মির। পাকিস্তান নারী ক্রিকেট দলের হয়ে খেলা ১২০ ওয়ানডেতে ২৪.২৭ গড়ে সানার উইকেট ১৫১টি। তাছাড়া টি-টোয়েন্টি সংস্করণে ১০৬ ম্যাচে ২৩.৪২ গড়ে ৮৯টি উইকেট পেয়েছেন সানা মির। ব্যাট হাতেও দলে যথেষ্ট অবদান রেখেছেন এই কিংবদন্তী অলরাউন্ডার। ১২০ ওয়ানডেতে ১৭.৯১ গড়ে ১৬৩০ এবং ১০৬ টি-টোয়েন্টিতে ১৪.০৭ গড়ে ৮০২ রান করেন সাবেক এই অধিনায়ক।

গত বছর নভেম্বরে দল থেকে সাময়িক বিরতি নিয়েছিলেন সানা মির। শেষ ইংল্যান্ড সফরে দলের সাথে দেখা যায়নি সফল এই নারীকে। শেষদিকে দলে নিয়মিত না হওয়ায়, পারফরম্যান্স এর ব্যর্থতায় ২০২০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে জায়গা হয়নি এই অলরাউন্ডারের। জাতীয় দলে ২২৬ ম্যাচ খেলা এই নারী দীর্ঘ সময় পাকিস্তান নারী ক্রিকেট দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। নেতৃত্বের পরিসংখ্যান খুব সমৃদ্ধ না হলেও একেবারে অসফল বলা যাবে না। ওয়ানডেতে সানা মিরের ৭২ ম্যাচের অধিনায়কত্বে দল জয় পেয়েছে ২৬টি ম্যাচ, পরাজিত হয়েছে ৪৫টি ম্যাচ। পাশাপাশি টি-টোয়েন্টি সংস্করণে ৬৫ ম্যাচের নেতৃত্বে দল জয় পেয়েছে ২৬টি এবং হেরেছে ৩৬টি ম্যাচে।

২০০৫ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে পা রাখে সানা মির। দীর্ঘ ১৫ বছর পাকিস্তান জাতীয় দলে খেলেছেন, নেতৃত্ব দিয়েছেন। শেষ বেলায় ওয়ানডে দলের শীর্ষ উইকেট সংগ্রাহক হিসেবে বিদায় নিচ্ছেন। তাছাড়া টি-টোয়েন্টিতেও দলের দ্বিতীয় শীর্ষ উইকেট সংগ্রাহক হিসেবে অবস্থান করছেন। ২০১৮ সালের অক্টোবরে তিনি ওয়ানডে সংস্করণে বোলারদের তালিকায় শীর্ষ স্থান অর্জন করেন। ২০০৫ সালে অভিষেক হওয়া সানার ক্রিকেটীয় জীবনে ২০১৭ সালের নারী বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচকে শীর্ষ সাফল্যের গল্প হিসেবে দেখছেন।

পাকিস্তানে নারীদের ক্রিকেট খেলা এত সহজ ছিলো না। সানা মির যেন আরাধ্য সাধন করেছেন। বিদায় বেলায় এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “আমি আমার পরিবার এবং গুরুকে ধন্যবাদ দিতে চাই। যারা আমাকে শর্তহীন সমর্থন দিয়েছেন। আমার স্বপ্ন পূরণে সহায়তা করেছেন। নিশ্চয়ই যারাই তারকাই ব্যাংক লিমিটেড (জেডটিবিএল) বিশেষ করে ধন্যবাদ প্রাপ্য, যারা আমাকে আমার পুরো ক্যারিয়ার জুড়ে সমর্থন করেছেন, সাহস জুগিয়েছেন। আশা করছি, ঘরোয়া লীগে আরও কিছুদিন খেলা চালিয়ে যাবো।”

সানা মির পাকিস্তান নারী ক্রিকেটের এক আদর্শের নাম। সানার হাত ধরে পাকিস্তান প্রমীলা ক্রিকেট দল পুরো বিশ্বকে তাদের জাত চিনিয়েছে। একজন সত্যিকারের দলপতি সানা মিরের আদর্শ দেশের প্রত্যেকটি মেয়েকে আরও অনুপ্রাণিত করে তুলছে। পাকিস্তান প্রমীলা ক্রিকেট দলে এর প্রভাব ক্রমশ বিস্তার পাচ্ছে।