করোনা ভাইরাস এবং আমাদের সচেতনতা।।

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ৩:৫৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০২০

————————
পুরো বিশ্ব আজ নাকাল হয়ে পড়েছে মহামারী করোনা ভাইরাসসের কারণে ।পুরো পৃথিবী স্থবির হয়ে পড়েছে । লাশের বন্যা বয়ে যাচ্ছে। প্রতিদিন নতুন করে যোগ হচ্ছে হাজারো নাম । নামকরা সব চিকিৎসা ব্যাবস্থা মুখ থুবড়ে পড়েছে মহামারী করোনা ভাইরাসের সামনে। পুরো পৃথিবীর চিকিৎসা ব্যাবস্থা প্রায় ব্যর্থ হয়ে পড়েছে ।।

পৃথিবীর বিখ্যাত চিকিৎসক, গবেষক গল বলছেন আমাদের সকলের সচেতনতায় হচ্ছে করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির এক ও একমাত্র উপায় । ইউরোপ, আমেরিকার মতো দেশ গুলোকে আজ একেবারে অসহায় করে ফেলেছে এই করোনা ভাইরাস।পুরো পৃথিবী অতিবাহিত হচ্ছে ভয়াবহ এক পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে ।

কিন্তু একেবারে উল্টো চিত্র আমাদের, আমাদের কাছে করোনা ভাইরাস কিছুই না। আমাদের দেশে নামমাত্র লকডাউন পালন করা হলেও আসলে তা কার্যকর হয়না। আমাদের সচেতনতার চিত্র একেবারেই ভিন্ন। জনসমাগম এড়িয়ে চলতে বলা হলেও আমরা জনবহুল এলাকায় অযথা ঘুরাঘুরি করি। আমরা বাজারে যায় লকডাউন কতটা কার্যকর হয়েছে তা পরখ করার জন্য।। আমরা থুতনিতে মাস্ক ঝুলিয়ে রাখি প্রশাসনের হাত থেকে রক্ষা পাবার জন্য।।

আমরা বাঙালী বীরের জাতি,আমরা হারতে জানিনা এটা যেন আজ আমাদের কাছে একটা প্রবাদ বাক্য হয়ে গেছে।। আমরা সবকিছুতেই বলতে শিখে গেছি আমরা হারতে জানিনা।। নিজেদের মাঝে নুন্যতম সচেতনতাটুকু না রেখেই আমরা ফাঁকা বুলি আওড়াইতে পারি।।

যেখানে আমাদের কঠোর ভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে বলা হচ্ছে, অধিক জনসমাগমপুর্ণ এলাকায় প্রবেশ করতে নিষেধ করা হচ্ছে, সেখানে অধিক জনসমাগমপুর্ণ জায়গা বাজারে যাওয়া থেকে আমরা নিজেদের বিরত রাখতে পারছিনা।

আর আমরা যারা চায়ের দোকানে বসে আড্ডা দেয় তাদের কথাতো না বললেই নয়, একেকজন যেন নাসার গবেষকদের থেকেও বড়। এরা যেন পৃথিবীর সবচেয়ে বড় বুদ্ধিজীবী, পুরো পৃথিবীর কোথায় কি হচ্ছে, কোন দেশের সরকার কি করছে, কোনটা ঠিক কোনটা ভুল এগুলো নিয়ে পক্ষে বিপক্ষে চায়ের কাপে ঝড় তুলতে পারাটাই যেন তাদের প্রধান কাজ। প্রতিদিন বিকেল হলেই তাদের অধিবেশন শুরু হয়।

আমাদের দেশ জনবহুল দেশ,যে কোন পরিস্থিতি সামাল দিতে আমাদের চাই সতর্কতা এবং সচেতনতা। কিন্তু, সবকিছুতেই রয়েছে আমাদের অবহেলা।

আর কতদিন আমরা এভাবে কাটিয়ে দেব। আর কতদিন ফাঁকা বুলি আওড়াইতে থাকবও আমরা। আমরা কি ঘুমিয়েই থাকবও নাকি ঘুম ভেঙে জেগে উঠব বীরপ্রতাপে।
পুরো জাতি জেগে উঠুক ও সচেতন হয়ে নতুন এক বাংলাদেশ গড়ে তুলুক এটাই কামনা।।

—————–
আব্দুর রহিম ।
শিক্ষার্থী, ইংরেজি সাহিত্য বিভাগ
দিনাজপুর সরকারি কলেজ।