কমলগঞ্জে মণিপুরী আন্তঃ যুব ক্রীড়া প্রতিযোগীতায় সমাপনী উৎসব অনুষ্ঠিত

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১২:৪০ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০২০

নির্মল এস পলাশ কমলগঞ্জ প্রতিনিধি :

বাংলাদেশের মণিপুরীদের জনগোষ্ঠীর সর্ববৃহৎ ক্রীড়া প্রতিযোগিতা মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের তেতইগাঁও গ্রামে বাংলাদেশ মণিপুরী যুব কল্যাণ সমিতি
তেতইগাঁও শাখা প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে।

জাতীয় পতাকা ও সংগঠনের ১৩ টি শাখা কমিটির পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করা হয়।০৭ দিনব্যাপি এই বৃহৎ ক্রীড়া আসর। সমাপনী দিনের ফুটবল ফাইনাল খেলায় অংশগ্রহণ করেন যুবকল্যাণ মাধবপুর শাখা বনাম ঘোড়ামারা শাখা।

বাংলাদেশ মণিপুরী যুব আন্ত:ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০২০ সমাপনী দিনের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান।
শিক্ষক কৃষ্ণ মোহন সিংহের সঞ্চালনায় শিক্ষক ভুবন সিংহর সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে
প্রধান অতিথি ছিলেন দেবজিৎ সিংহ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ,সিলেট জেলা পরিষদ,বিশেষ অতিথিবৃন্দ স্বপন কুমার সিংহ সহকারী অধ্যাপক,শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হবিগঞ্জ ,রবিন্দ্র কুমার সিংহ সহকারী কমিশনার কাস্টমস সিলেট, আবদাল হোসেন চেয়ারম্যান ৭ নং আদমপুর ইউনিয়ন,মুক্তিযোদ্ধা আনন্দ মোহন সিংহ সভাপতি মণিপুরী সমাজ কল্যাণ সমিতি, সাধারণ সম্পাদক কমলা বাবু সিংহ ,প্রদীপ কুমার সিংহ।

এই প্রতিযোগিতায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে অবস্থানরত মণিপুরীদের ১৩টি শাখা দল অংশগ্রহণ করেন। এই খেলাকে ঘিরে মহামিলন মেলায় পরিণত হয়। কমলগঞ্জের তেতইগাঁও গ্রামে। খেলা শেষে বর্ণিল আতুসবাজী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়।

প্রতিযোগিতার ইভেন্টগুলো ছিলো ফুটবল, ভলিবল, ক্রিকেট, ব্যাডমিন্টন, দাবা, তীরন্দাজ, ৫০০ মিটার দৌড়, ম্যারাথন দৌড়। প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ মণিপুরী যুব কল্যাণ সমিতির ১৩ টি সাংগঠনিক শাখার টীম মাধবপুর, তিলকপুর, ঘোড়ামারা, ভানুবিল, বালিগাঁও, মাধবপুর, গোলেরহাওর, বিষগাঁও চুনারুঘাট, গোয়াইনঘাটের বিছনাকান্দি, কোম্পানীগঞ্জের মাঝেরগাঁও, ছাতকের ধনীটিলা, সিলেটের মাছিমপুর, ডালুয়া, তেতইগাঁও শাখা।

আয়োজক শাখার সভাপতি অরুণ কুমার সিংহ জানান ক্রীড়ানুষ্ঠান সফল ভাবে সম্পন্ন হওয়ায় সকলের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা। দিনের বেলা ছাড়াও রাতেও কিছু ইভেন্টের খেলা হয়। আমরা আয়োজকরা একটি সুন্দর খেলার আয়োজন উপহার দেয়ার জন্য সকলের সহযোগিতা ভুলার নয় । আয়োজকরা আরো জানান, দুরবর্তী এলাকার টীমগুলোর জন্য থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

বামযুকস’র কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি প্রদীপ কুমার সিংহ জানান, কেন্দ্রের সাধারণ সভায় অনুমোদনক্রমে কোন অঞ্চল খেলা আয়োজন করবে তা নির্ধারণ করা হয়। এই খেলার মধ্যদিয়ে মণিপুরী যুবকরা সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হওয়া ছাড়াও সমাজে ঐক্য, সৌহার্দ্য ও সম্প্রতি আনবে বলে আমাদের বিশ্বাস।