কবিতা “অব্যক্ত কাব্য” সাহিন আলী

নিউজ নিউজ

ভিশন ৭১

প্রকাশিত: ৯:৫৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০২০

বিধাতার কাছে অনবরত তোমাকেই চেয়েছি

জানো রাত নেমে এলেই___
কল্পনাই তোমার সাথে কত কথায় না হয়,
তোমার কথা ভেবে ভেবে চোখে জল গড়ায়।

একদিন তো বলেই ফেললাম__
আমি তোমার সন্তানের মা হতে চায়।
তাইতো এখনো লাল বেনারসি শাড়ি-
পড়ে তোমার জন্য অপেক্ষা করে যায়।

মাথায় পাগড়ি, মুখে রুমাল,
গায়ে শেরওয়ানিতে, আমায় নিতে এলে:
এইভেবে আমার মুখটা লজ্জাবতীর
ন্যায় লজ্জায় লাল হয়ে যায়।

আমাদের ছোট্ট একটা সংসার হবে।
একটা বাচ্চা, নাহ দুইটা হলে ভালো!
সন্তানের মুখে মা ডাক শোনার মতো
বড় সুখ আর কি হতে পারে বল।

ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে যাব___

হাতে হাত রেখে শিশির ভেজা পথে_
অন্তহীন পথ চলিব দুজন
ঘাসফুল পূর্ণতা পাবে আমাদের চরণস্পর্শে
ক’জনেই বা করে বলো,এমন ইচ্ছে পোষণ?

পথিমধ্যে সন্ধ্যে নেমে এলে___

জোনাকিপোকার আলোর রাঙা শহরে
আকাশে তারাদের ভিড়ে
আমি চাঁদ হব __
সেই চাঁদের আলো তুমি গায়ে মেখে
আমার সহিত গল্প করবে,বসে নদীর ধারে
আর বারবার হারিয়ে যাবে আমার চোখে

বলো না?
গল্প করার সৌভাগ্য হবে কি আমার?
আশাবাদী আমায় তুমি ফেরাবে না।

বছরে একবার দুইবার ঘুরতে যাব__

মাঝে মাঝে দুষ্টুমিও করব
যখন তুমি আমার উপর রেগে যাবে__
তখন তোমার কপোলে গোলাপের
দুটি পাপড়ির আল্পনা এঁকে দিব
তারপর তোমায় এক মুহূর্ত জড়িয়ে নিব
দেখবে তোমার সব রাগ নিমিষেই লাপাত্তা হয়ে গেছে।

এমন হাজারো অব্যক্ত কাব্যের সমাহার__
লিখে রেখেছি আমার মায়াবী চোখের উপর।

সাহিন আলী
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়