ইসলামপুরে যমুনার চরে দুইদল ডাকাতের প্রকাশ্য অস্ত্র মহড়া

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ৮:০৩ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১১, ২০১৯


রোকনুজ্জামান সবুজ, জামালপুর ঃ

জামালপুরের ইসলামপুর বেলগাছা ইউনিয়নের মন্নিয়ারচর এলাকায় স্থানীয় দুই দল ডাকাত দীর্ঘদিনের ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার দুপুরে নিজ এলাকায় প্রকাশ্য দিবালোকে আগ্নেয়াস্ত্রের মহড়া দিয়েছে। ইসলামপুর, সাঘাটা ও ফুলছড়ি এই তিন উপজেলা সমুহের সীমান্তবর্তী যমুনার দুর্গম চরাঞ্চলে নিজেদের আধিপত্য বিস্তারের জন্য মন্নিয়াচরের দুইদল ডাকাত মঙ্গলবার দুপুরে প্রকাশ্যে অস্ত্রবাজির মহড়া দিয়েছে যাহা চরের শতশত মানুষ দেখেছে বলে জানা গেছে। এনিয়ে যমুনার চরাঞ্চলে চরম ক্ষোভ, হতাশা ও ভীতির সঞ্চার হয়েছে।
ইসলামপুরের সাপধরী ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি শাহ আলম মন্ডল জানান, বেলগাছা ইউনিয়নে যমুনার দুর্গম মন্নিয়াচর এলাকায় স্থানীয় দুই দল ডাকাত প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া দিতে দিতে সাপধরী ইউনিয়নের প্রজাপতিচর এলাকায় প্রবেশ করার চেষ্টা করে। ওই সময় প্রজাপতি চরের সাধারণ জনতা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। একপর্যায়ে সাপধরী ইউনিয়নের প্রজাপতি ও চরশিশুয়ার শতশত প্রতিবাদী জনতা ঐক্যবদ্ধ হয়ে মন্নিয়া চরের উভয় ডাকাত দলকে ধাওয়া করে। ওই সময় ডাকাতরা ডজন খানেক আগ্নেয়াস্ত্র প্রদর্শন পূর্বক অন্তত: ২০ রাউন্ড ফাকা গুলি বর্ষণ করতে করতে উজান দিকে পালিয়ে গেছে।
সাপধরী ইউনিয়নের প্রজাপতি চরের আ’লীগ নেতা আহাম্মদ আলী জানান, মন্নিয়া চরের ডাকাতরা প্রায়ই রাতের অন্ধকারে যমুনার দুর্গম চরাঞ্চলের বিভিন্ন গ্রামের নিরীহ কৃষকদের বাড়ীঘরে হানা দিয়ে নগদ টাকা, গরু বাছুর ও মুল্যবান মালামাল লুটে নিয়ে যায়। এছাড়াও ওইসব ডাকাতরা মাঝে মধ্যেই যমুনা নদীতে উজান থেকে ভাটির দিকে যাতায়াতকারী মালবাহি নৌকায় প্রকাশ্যে ডাকাতি করে। এজন্য ইসলামপুর, সাঘাটা, ফুলছড়ি ও সারিয়াকান্দি উপজেলা সমুহের যমুনা চরের মানুষগুলো তাদের জানমাল ও গবাদি পশু রক্ষায় ভয়ে দলবেঁধে নির্ঘুম রাত কাটায়। এজন্য ভুক্তভোগীরা দীর্ঘদিন যাবত মন্নিয়া চরের উভয় ডাকাত দলকে গ্রেফতারের লক্ষে যমুনার চরাঞ্চলে বিশেষ অভিযান পরিচালনার জন্য দীর্ঘদিন যাবত দাবী করে আসছেন।
ইসলামপুরের সাপধরী ইউপি চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন বিএসসি জানান, প্রজাপতি চরাঞ্চলে মন্নিয়াচরের দুই দল ডাকাতের প্রকাশ্যে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে মহড়া দেওয়াসহ ফাকা গুলি বর্ষণের বিষয়টি তিনি এলাকার অনেকের কাছে শুনেছেন। এলাকায় ডাকাতদের ওই প্রকাশ্য মহড়া দেওয়ার বিষয়টি তিনি তাৎক্ষনিক ভাবে স্থানীয় এমপি আলহাজ ফরিদুল হক খান দুলাল এবং ইসলাপুরের ইউএনও মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে জানিয়েছেন বলেও জানান।
এব্যাপারে ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানদের নিকট যুনার চরাঞ্চলে ডাকাতদের মহড়ার খবরটি নিশ্চিত হয়ে বিষয়টি তাৎক্ষনিক ভাবে স্থানীয় এমপি মহোদয়কে জানানো হয়েছে। মাননীয় এমপি আলহাজ ফরিদুল হক খান দুলাল মহোদয় বিষয়টি জানার পর তাৎক্ষনিভাবে যমুনার দুর্গম চরাঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য জামালপুরের পুলিশ সুুপারসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে জরুরী নির্দেশ প্রদান করেছেন।