অতএব ইহার গুরুত্ব অপরিসীম ।।

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ৮:০৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০

মোঃ রাজীব হোসেন :

সরোবরঃ আচ্ছা অমরাবতী, তুমিতো শেষমেষ আমারই হলে তাহলে আগে কেন বুঝতে চাইতে না আমাকে?
অমরাবতীঃ মি. সরোবর আমি যদি তখন তোমার আবেগের মূল্য দিতাম তাহলে তুমি আমাকে নিয়েই পড়ে থাকতে,আজকের এই সুন্দর জীবনটা আমরা উপহার পেতাম না।হয়তো তোমাকে পেতাম না কিংবা আমাকে তুমি।
সরোবরঃ তাই বুঝি! কিন্তু আমারতো তোমাকে একটিবার দেখার জন্য মন অস্থির হয়ে থাকতো, তোমার একটা ফোন কলের অপেক্ষায় দিন, সপ্তাহ,মাস অতিবাহিত হতো, মনের অব্যক্ত কথা না
বলতে পেরে মনটা বদ্ধ জলাশয়ে পরিণত হতো।

অমরাবতীঃ বুঝতে পারতাম সব, কিন্তু আমাদের ভালোর জন্যই কিছু করতে পারতাম না।তোমার সাথে কথা না বলার মধ্যে আমার হাজার কথা জমে থাকতো মনে, একটু চোখের দেখাতে হাজার কথা প্রকাশ পেতো চোখে।কষ্ট তোমার থেকে আমার কোন অংশে কম হতো না।
সরোবরঃ তুমি সে জন্যই ঐ কঠিন আচরণ করতে আমার সাথে ?

অমরাবতীঃ হুমম। তোমার সৎ জীবন যাপনের স্বপ্ন
,আমার প্রতি তোমার অবিরত ভালোবাসা( প্রেম বা সম্পর্ক নই যা সহজে ভেঙে যাওয়ার ক্ষমতা রাখে) আমাকে সব সময় মুগ্ধ করতো।আমি ঐ সময়ে তোমাকে সহজ ভাবে গ্রহণ করে নিলে আজ সুন্দর পরিবার গঠন করতে পারতাম না আমরা।তাছাড়া তোমার সেই মধুর স্বপ্ন পূরণ হতোনা। এখনতো “তুমি আর আমি কাহিনি বাংলার ঘরে ঘরে”।

সরোবরঃ এতোক্ষণে বুঝতে পারলাম মেম সাহেব ( অমরাবতী) আপনার ভালোবাসার গুরুত্ব।
অমরাবতীঃ জ্বি স্যার ( সরোবর),আমাদের ভালোবাসার গুরুত্ব অপরিসীম।
পাঠক, আপনাদের ভালোবাসার গুরুত্ব কতোটুকু?