চট্টগ্রামে দলীয় নেতা-কর্মী ও জনগনের মতামতে এগিয়ে যুবলীগ নেতা ফরিদ মাহমুদ

28109200_1226749444126074_1103980759_n-1.jpg

মোঃশহিদুল ইসলাম সুমন
ষ্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম।

সম্প্রতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, মন্ত্রী, এম পি, সারাদেশের বিভিন্ন স্তরের নেতা কর্মীদেরকে আগামী নির্বাচনের ফলাফল ঘরে তোলার জন্য সরকারের উন্নয়নমূলক প্রকল্পের প্রচার, পাশাপাশি চারদলীয় জোট সরকারের আমলে সীমাহীন দূর্নীতি, দেশব্যাপী সংখ্যালঘু ও বিরোধীদলীয় নেতা কর্মীদের নির্যাতন, সন্ত্রাস, নৈরাজ্য, বোমাবাজি ও দূঃশাসনের চিত্র জনগের কাছে তুলে ধরার নির্দেশ দিয়েছেন।
এ বিষয়ে তিনি নিউজ ভিশনকে জানান, আমি তো জননেএী শেখ হাসিনার মাত্র হর্কার হিসেবে কাজ করছি,সরকারের উন্নয়ন জনগনের দ্বারে পৌছে দিচ্ছি।

চট্টগ্রামের আপামর জনগণের কাছে সৃজনশীল ও মেধাবী রাজনীতিবীদ হিসেবে পরিচিত ফরিদ মাহমুদ এই দিক দিয়ে আছেন অনেকটা এগিয়ে।গত ছয় মাস ধরে চট্টগ্রাম মহানগরীতে সরকারের উন্নয়নের তথ্য সংক্রান্ত বিষয়ে জনগণকে অবহিতকরণ সংক্রান্ত আলোচনা সভা,
নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ড এবং মোড়ে মোড়ে ভিডিওচিত্র প্রদর্শন, মসজিদ, মন্দির, মাদ্রাসা, গীর্জা ও প্যাগোডায় লিফলেট বিতরণ, মহানগরীর সমগ্র এলাকায় পোষ্টার লাগানো, সরাকারের মেগা প্রকল্পের উন্নয়নের ছবি সম্বলিত ক্যালেন্ডার ও মগ বিতরণ করে নগর জুড়ে ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও চলছে সমানতালে প্রচারণা। আগামী নির্বাচনে মেধাবী সংগঠকদের কাজে লাগিয়ে নিত্য -নতুন কৌশল প্রয়োগ করা হবে।নির্বাচনী প্রচারণায়ও আসছে অভিনবত্ব।চট্টগ্রামে সরকারের উন্নয়ন নিয়ে প্রচার- প্রচারণায় মাঠে সরব আছেন ফরিদ মাহমুদ।ইদানিং ফরিদ মাহমুদকে অনেকেই অনুসরণ করছেন।

নানা পদ্ধতিতে প্রচারে নেমেছেন তারা।চট্টগ্রাম মহানগর ছাড়াও উত্তর -দক্ষিণ জেলার অনেক নেতাই তাকে অনুসরণ করছেন।এ কর্মকান্ড ছড়িয়ে পড়তে পারে চট্টগ্রাম বিভাগের এগারটি জেলায়।বৃহত্তর চট্টগ্রামের মন্ত্রী, এমপি এবং বড় বড় নেতা পর্যন্ত ফরিদ মাহমুদের কাজের প্রশংসা করছেন।

Top