ডোমারে শিক্ষার্থীদের বাধ্য করা হচ্ছে অ-অুনুমোদিত পাঠ্য বই ক্রয়ে

images-7.jpg

বখতিয়ার ঈবনে জীবন, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি ঃ
নীলফামারীর ডোমারে অ-অনুমোদিত নি¤œমানের পাঠ্য বই ক্রয়ে শিক্ষার্থীদের বাধ্য করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
এ নিয়ে ডোমার উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর অভিভাবকগন লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। দায়ের করা অভিযোগে জানা যায়, জেলার ডোমার উপজেলার মটুকপুর স্কুল এ্যান্ড কলেজে শিক্ষানীতি বহির্ভূতভাবে ৬ষ্ট, ৭ম, ৮ম ও নবম শ্রেনীর শিক্ষার্থীদেরকে বিদ্যালয় কতৃক সরবরাহকৃত বুকলিষ্টের মাধ্যেমে বাধ্যতামুলকভাবে নি¤œমানের ইংরেজী গ্রামার ও বাংলা ব্যাকরন বই কিনতে বাধ্য করা হচ্ছে। যে সকল বই তাদের সরবরাহকৃত বুকলিষ্টে দেয়া হয়েছে তা স্থানীয় বা পার্শ্ববর্তী কোন জেলা বা উপজেলায় পড়ানো হয় না। শুধুমাত্র ওই প্রতিষ্ঠানেই পড়ানো হচ্ছে। এ সকল বই উপজেলা সদরের বিচিত্রা বিপনী নামের একটি মাত্র লাইব্রেরী হতে কিনতে হয় এবং তা উচ্চ ব্যায় সাপেক্ষ হওয়ায় অভিভাবকদের আর্থিক ক্ষতির কারন হয়ে দাড়িয়েছে বলে অভিযোগে প্রকাশ। সরকার কতৃক নির্ধারিত পাঠ্য বই থাকা সত্বেও মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে অ-অনুমোদিত এ সকল বই ক্রয়ে শিক্ষার্থীদের বাধ্য করা হলেও যেন বিষয়টি দেখার কেউ নেই। এ সকল বই ক্রয়ে শিক্ষার্থীদের বিরত রাখতে এবং সংশ্লিষ্ট শিক্ষক ও ওই চক্রের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহন করতে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগন সরকারের যথাযথ কতৃপক্ষের কাছে আবেদন জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে ডোমার উপজেলা মাধ্যেমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সাকেরিনা বেগম অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেনে।

Top