রাঙ্গামাটিতে গ্রেফতারকৃত জেলা বিএনপির সভাপতি সহ কর্মীদের ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন

27720779_2029103197370403_1547504720_n.jpg

আনু হোসাইন, রাঙামাটি।

বিশেষ অভিযানে আটক হওয়া রাঙামাটি জেলা বিএনপির সভাপতিসহ আটককৃত ছয় নেতাকে সন্ত্রাস দমন আইনে আটক দেখিয়ে রাঙামাটির চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটর এর আদালতে উপস্থাপন করে ৫দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়েছে কোতয়ালী থানা পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে আদালতে উপস্থাপন করে রিমান্ডের আবেদন জানায় কোর্ট পুলিশ।
রিমান্ডের বিরোধীতা করে বিএনপিনেতাদের আইনজীবিরা এবং জামিনের আবেদন জানায়। এসময় সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কাজী মোহাম্মদ মহসিন এর আদালত উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে ৭ই ফেব্রুয়ারি (বুধবার) এই মামলার রিমান্ড আবেদনের শুনানীর দিন ধায্য করে আসামীদের হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।
এর আগে সোমবার সন্ধ্যারাতে দলীয় কার্যালয়ে অবস্থানকালীন সময়ে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে সভাপতি সহ ৬ জনকে আটক করে,
পরে তাদেরকে সন্ত্রাস দমন আইন ২০০৯ এর সংশোধনী ২০১৩ এর ১১ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে বুধবার দুপুরে রাঙামাটিস্থ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে উপস্থাপন করে ৫দিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়।
এই মামলার বাদী কোতয়ালী থানার এসআই শিবু প্রসাদ দাশ। বুধবার আসামীদের পক্ষে আদালতে জামিন আবেদন জানান, সিনিয়র আইনজীবি এ্যাডভোকেট দীপেন দেওয়ান, এ্যাডভোকেট মোখতার আহম্মেদ, এ্যাডভোকেট শাহআলম, এ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম পনির, এ্যাডভোকেট মামুনুর রশিদ মামুন ও এ্যাডভোকেট শহিদুল ইসলাম প্রমুখ। অপরদিকের আদালতের কোর্ট ইন্সপেক্টর সাদেকুর রহমান ও এসআই মকবুল আসামীদের রিমান্ডের আবেদন করেন।
এদিকে বিশেষ অভিযানের মাধ্যমে কাপ্তাই উপজেলা যুবদলের সমবায় বিষয়ক সম্পাদক মো. নুরুল আলম (৩০), ওয়াগ্গা ইউপি শ্রমিকদলের সভাপতি আব্দুল আল মাহিয়ান ডালিম (৩৫), ওয়াগ্গা ইউপি যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম (৪০), কাপ্তাই ইউনিয়ন বিএনপি সদস্য মো. হারুন (৪৮), কাপ্তাই ইউপি বিএনপি সদস্য মো. ফয়েজ আহম্মদ (৪০) এবং বিএনপি সমর্থক মে. রবিউলকে(২৮) আটক করা হয়েছে।
কাপ্তাই থানা অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মো. নূর ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সোমবার বিশেষ অভিযান চালিয়ে বিএনপি ও তাঁর অঙ্গ সংঘঠনের ৬জনকে আটক করা হয়েছে।
অপরদিকে কাউখালী উপজেলায়ও পুলিশের বিশেষ অভিযানে ছাত্রদল নেতা সুজনকে পুলিশ আটক করে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছেন রাঙামাটি জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক দীপন তালুকদার।
সোমবারা রাতে বিএনপি পরিবারের নেতাকর্মীদের বাসায় বাসায় রাতের অন্ধকারে অভিযান চালিয়ে পুলিম যেহারে তান্ডব চালিয়েছে এই ধরনের অগণতান্ত্রিক স্বৈরাচারি আচরনের তীব্র নিন্দা জানিয়ে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমাদের রাঙামাটি জেলার রাজনৈতিক সহাবস্থানপূর্ন শান্ত পরিবেশকে অশান্ত করে গড়ে তুলতে সম্পূর্ন বিনা উষ্কানিতে পুলিশ যে আচরণ শুরু করেছে এটা ভবিষ্যতে ভালো কিছু বয়ে আনবে না। তিনি অবিলম্বে তার নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানিয়েছেন।

Top