উখিয়ায় অগ্নিকান্ডে ৪ বসতবাড়ি পুড়ে ছাই, তদন্ত শুরু

received_1211092335661004.jpeg

কায়সার হামিদ মানিক,উখিয়া:
কক্সবাজারের উখিয়ার কোটবাজার স্টেশন সংলগ্ন সাতবাড়িয়াপাড়ায় ভোররাতে রহস্যজনক অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৪ সংখ্যালঘু পরিবারের বসতবাড়ি সর্বস্ব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এ অগ্নিকান্ডের সুত্রপাতটি রহস্যজনক মনে করছে স্থানীয় লোকজন ও সচেতন মহল। বিষয়টি স্পর্শকাতর মনে করে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন অতি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত শুরু করে দিয়েছে বলে জানিয়েছেন উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আবুল খায়ের।
খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: নিকারুজ্জামান চৌধুরী রবিন, কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: আফরাজুল টুটুল, উখিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাইলাউ মারমা, উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আবুল খায়ের ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলে বিস্তারিত অবগত হন।
জানা যায়, ১৩ ডিসেম্বর (শনিবার) ভোর ৫টার দিকে রতœাপালং ইউনিয়নের কোটবাজার সাতবাড়িয়া (বড়ুয়াপাড়া) এলাকার মৃত প্রিয়দর্শী বড়ুয়ার পুত্র আশুতোষ বড়ুয়া ও পরিতোষ বড়ুয়া এবং মৃত লোকনাথ বড়ুয়ার পুত্র রূপন বড়ুয়া ও সুমন বড়ুয়ার বসতবাড়িতে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। কিছু বুঝে উঠতে না পারতে পুরো আগুন ছড়িয়ে পড়লে ৪টি বাড়ি সম্পূর্ণ পুড়ে যায়। এতে বাড়িতে থাকা নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার, ৭টি পাসপোর্ট, ৮টি আইডি কার্ড, শিক্ষার্থীদের সনদ, জমির দলিল, আসবাবপত্র মূল্যবান কাপড়-চোপড়সহ সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এতে অন্তত: ১ কোটি টাকার ক্ষতিসাধিত হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের গৃহকর্তা আশুতোষ বড়ুয়া জানান।
এদিকে অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে উখিয়া ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ঘটনাস্থলে পৌঁছার পূর্ব মুহুর্তে সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়। কিছুই বাড়িঘর থেকে বের করা সম্ভব হয়নি। এ ঘটনাকে সচেতন মহল ও স্থানীয় লোকজন একটি পরিকল্পিত ঘটনা বলে মনে করলেও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রেখে মুখ খুলতে রাজি হচ্ছে না।
উখিয়া থানার ওসি মো: আবুল খায়ের অবশ্যই বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন এবং এ ঘটনাটি কক্সবাজার পুলিশ ইনভেষ্টিগেশন ব্যুারো তদন্ত করে রহস্য উদ্ঘাটনের চেষ্টা করছে বলে জানান।
উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: নিকারুজ্জামান চৌধুরী রবিন জানান, ক্ষতিগ্রস্থ ৪ পরিবারকে নগদ ২৪ হাজার টাকা ৮বান ঢেউটিন, শাড়ী, লুঙ্গি, শীতের কম্বল প্রদান করা হয়েছে। পরবর্তীতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে আরো আর্থিক সহযোগিতার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।
অপরদিকে একইদিন দুপুরে উখিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) ছেনুয়ারা বেগমের পক্ষে তাঁর ছেলে ও কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রভাবশালী সদস্য জিহান চৌধুরী ক্ষতিগ্রস্থ ৪ পরিবারের হাতে শীতের কম্বল তুলে দেন।

Top