উপকূলীয় জেলা ভোলার মানুষ গত কয়েক দিন ধরে তীব্র শীতে কাঁপছে

Bhola-pic-01.jpg

ফয়সল বিন ইসলাম নয়ন,ভোলা থেকে :
উপকূলীয় জেলা ভোলার মানুষ গত কয়েক দিন ধরে তীব্র শীতে কাপছে। প্রচন্ড শীতে নিন্ম আয়ের সাধারন মানুষ রয়েছে চরম বিপাকে। শীতের প্রকোপে ঘর থেকে বের হতে পারছেনা দিনমজুর আর খেটে খাওয়া মানুষ। জেলার হাসপাতাল গুলোতেও শীতজনিত রোগীদের ভীড় বাড়ছে। এদিকে জেলায় আজ মৌসুমে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৭ দশমিক ৬ ডিগ্রী সেলিসিয়াস। এতে আরো বেশী দুর্ভোগে পড়েছেন বেড়ি বাঁধের হত দরিদ্র ছিন্নমূল মানুষ। শীত বন্ত্র না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা।
মাঘের শুরু থেকেই হাড় কাপানো শীতে ভোলার জন জীবন অচল হয়ে পড়েছে। কুয়াসার চাঁদর ভেদ করে সূর্যি মামার দেখা পেতে দিনভর অপেক্ষা করলেও তা যেন দুর্লভ প্রায়। একটু উষ্ণতা পেতে কেউবা আ আগুন জ্বালিয়ে জড়ো হয়ে বসেছেন।
তবে হাড় কাপানো শীত যেন দিন দিন বেড়েই চলছে, কেউ কেউ চেষ্টা করলেও শিশু ও বয়স্করা পড়ছেন চরম বিপাকে। জেলার হাসপাতালগুলোতে নিউমোনিয়াসহ শীতজনিত রোগে আক্রান্ত শিশুদের ভীড় ক্রমেই বাড়ছে। আবহাওয়া অফিস বলছে, মৌসুমে সর্বনিম্ন তাপমাত্র রেকর্ড হয়েছে, জানুয়ারী শেষ সপ্তাহ পর্যান্ত তা অব্যাহত থাকবে।
অন্য দিকে টানা শৈত্য প্রবাহ আর গরম কাপড় না থাকার বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ভোলার ছিন্নমূল হত দরিদ্র মানুষ। শীতের কারনে কাজে যেতে পারছেনা শ্রমজীবী রিক্সা চালক, দিন মজুর ও খেটে খাওয়া মানুষ।
এব্যাপারে ভোলার জেলা প্রশাসক মোহাং সেলিম উদ্দিন জানান, শীতার্ত মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে ইতিমধ্যেই শীতবস্ত্র বিতরন শুরু হয়েছে। জেলা প্রশাসন, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের সমন্বয়ে প্রতিটি এলাকায় শীতবস্ত্র পৌছান হবে।

Top