ইবির সমাবর্তনে সকল প্রকার ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিষিদ্ধ

received_692307814491327.jpeg

ইবি প্রতিনিধি :

ইবির আসন্ন চতুর্থ সমাবর্তন অনুষ্ঠানে মোবাইল ফোনসহ সকল প্রকার ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন। এতে মোবাইল ফোন নিয়ে বিপাকে পড়বে সমাবর্তনে রেজিট্রেশনকারী ৯ হাজার ৩০০ গ্র্যাজুয়েট এবং আমন্ত্রিত অতিথিরা।
তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মাহবুবর রহমান বলেন, রাষ্ট্রপতির নিরাপত্তার স্বার্থে সকলকে কয়েক ঘণ্টা একটু কষ্ট সহ্য করতে হবে। তবে মোবাইল এবং ব্যাগ রাখার জন্য প্রশাসনিক ভবনের পশ্চিম পাশে আম বাগানে স্টল করা হয়েছে। সেখানে সকলে বিনামূল্যে এ সেবা নিতে পারবেন।
দীর্ঘ ১৬ বছর পর আগামী ৭ জানুয়ারি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এতে সভাপতিত্ব করবেন রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মো. আবদুল হামিদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ইউজিসিরি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান। সমাবর্তন বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অধ্যাপক মুহাম্মদ জাফর ইকবাল।
এদিকে সমাবর্তন অনুষ্ঠানের সময়সূচি প্রকাশ হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ। সময়সূচি অনুযায়ী- ৭ জানুয়ারি দুপুর ১২টা ২৫ মিনিটে রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মো. আবদুল হামিদের নেতৃত্বে সমাবর্তন শোভাযাত্রার মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হবে। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুটবল মাঠে সমাবর্তন অনুষ্ঠান স্থলে গিয়ে অতিথিরা আসন গ্রহণ করবেন। সেখানে জাতীয় সঙ্গীত ও পবিত্র ধর্মগ্রন্থ পাঠ শেষে ১২টা ৩০মিনিটে রাষ্ট্রপতি সমাবর্তনের উদ্বোধন ঘোষণা করবেন।
পরে বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত প্রামাণ্যচিত্র, উপাচার্য অধ্যাপক রাশিদ আসকারীর স্বাগত বক্তব্য, রাষ্ট্রপতির কাছে ডিগ্রিপ্রাপ্তদের উপস্থাপন, রাষ্ট্রপতি কর্তৃক ডিগ্রি দেয়া শেষে দুপুর ১২টা ৫৩ মিনিটে রাষ্ট্রপতি ২০ জন পোস্ট গ্র্যাজুয়েটকে সনদ ও স্বর্ণ পদক দেবেন।
দুপুর ১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ, উপ-উপাচার্যের ধন্যবাদ জ্ঞাপন, বিশেষ অতিথি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নানের বক্তব্য, সমাবর্তন আলোচক অধ্যাপক জাফর ইকবালের বক্তব্য ও ক্রেস্ট দেয়া শেষে ১টা ১৮ মিনিটে রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মো. আবদুল হামিদ বক্তব্য দেবেন। পরে দুপুর দেড়টায় রাষ্ট্রপতি সমাবর্তনের আনুষ্ঠানিক সমাপ্ত ঘোষণা করবেন। পরে বিকেল তিনটা থেকে শুরু হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে জলের গান, লিজা, শফি মন্ডল এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্পীরা মঞ্চ মাতাবেন।
এদিকে চতুর্থ সমাবর্তনে গাউন, দাওয়াতপত্র, লাঞ্চ টোকেন আগামী ৬ জানুয়ারির মধ্যে সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে সংগ্রহ করার নির্দেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এছাড়া মূল সনদের জন্য ৬ জানুয়ারি পর্যন্ত বিভাগে প্রভিশনাল সনদ জমা নেয়া হবে। সমাবর্তনের দিন এবং পরের দিন দুপুর দেড়টার মধ্যে সকলকে সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে মূল সনদ সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে।

Top