চট্টগ্রাম পিবিআই পুলিশের প্রাণভ্রোমরা সন্তোষ কুমার চাকমা’র পিপিএম (সেবা) পদক অর্জনঃ

26235288_261756537687848_704934100_n.jpg

জে,জাহেদ বিশেষ প্রতিবেদকঃ

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) চট্টগ্রাম মেট্রোর পুলিশ পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা ২য় বারের মতো আবারো পিপিএম পদক অর্জন করেছেন।

‘জঙ্গি ও মাদক প্রতিকার, পুলিশ সপ্তাহের অঙ্গীকার’ স্লোগান নিয়ে আগামী ৮ জানুয়ারি শুরু হচ্ছে পুলিশ সপ্তাহ। এ আয়োজনে সাহসিকতা ও সেবার স্বীকৃতি হিসেবে এ পদক অর্জন করেন তিনি।

পুলিশ সপ্তাহের উদ্বোধনী দিন ৮ জানুয়ারি সকালে রাজারবাগ পুলিশ লাইন মাঠে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশের প্যারেডে সালাম গ্রহণ করবেন ও পদক তুলে দেবেন।

চারটি ক্যাটাগরিতে এবার সাহসিকতার জন্য ৩০ জনকে বিপিএম, সেবার স্বীকৃতি হিসেবে ২৮ জনকে বিপিএম, সাহসিকতার জন্য ৭১ জনকে প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল (পিপিএম) ও সেবার স্বীকৃতি হিসেবে পিপিএম পাবেন ৫৩ জন।

প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুন্যালের তিন পুলিশ সদস্য আছেন এ তালিকায়। পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানদের অনেকের নামও আছে।

জানা যায়, ক্লুবিহীন, তথ্যহীন চাঞ্চল্যকর মামলা তদন্তে সাফল্যের নেপথ্যে ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন চৌকস এই পুলিশ অফিসার সন্তোষ কুমার চাকমা।

যেকোন অপরাধের রহস্যের কিনারায় সহজে পৌঁছাতে পারেন পিবিআই এর প্রাণ পরিদর্শক সন্তোষ। ২০১৫ সালে পিপিএম (সেবা) পদক অর্জন করেন তিনি। ২০১৪ ও ২০১৭ সালে পেয়েছেন আইজিপি র‌্যাঙ্ক ব্যাজ।

সুত্র জানায়, ২০০৫ সালে পুলিশ বাহিনীতে উপপরিদর্শক (এসআই) পদে যোগ দেন সন্তোষ। পাঁচ বছর কর্মরত ছিলেন নগর গোয়েন্দা পুলিশে। এর আগে কর্ণফুলী ও কোতোয়ালি থানা এবং সিআইডিতে কর্মরত ছিলেন সন্তোষ।

২০১৬ সালের ২০ জুলাই পদোন্নতি পান পরিদর্শক পদে। এরপর ঢাকায় সিআইডিতে এক মাস কর্মরত থেকে বদলি হন চট্টগ্রাম পিবিআইয়ে।

২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর থেকে পিবিআইয়ের চট্টগ্রাম মেট্রো ইউনিটে কর্মরত আছেন সন্তোষ।

২০১১ ও ২০১৩ সালে বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ও সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণের উপর যুক্তরাষ্ট্রে প্রশিক্ষণ নেন সন্তোষ। চলতি বছরের মার্চে ভারতের সিবিআই একাডেমিতে আর্থিক অপরাধ-সংক্রান্ত বিষয়েও প্রশিক্ষণ নেন।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিভাগে পড়াশোনা শেষ করেন রাঙামাটির সন্তান সন্তোষ।

Top