রোহিঙ্গা গণহত্যা জাতিগত নিধনের সামিল:উখিয়ায় তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী

received_1782367781787051.jpeg

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া।
মিয়ানমারের রোহিঙ্গা গণহত্যাকে ‘জাতিগত নিধন’ সামিল বলে উল্লেখ করেছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম।
তিনি বলেছেন, রোহিঙ্গাদের স্বদেশে ফেরত পাঠানো এবং নিরাপদে বসবাসের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সম্মিলিত ভাবে একযোগে কাজ করা জরুরি হয়ে পড়েছে।
বুধবার কক্সবাজারের উখিয়ায় বালুখালী রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।
তুর্কিপ্রধানমন্ত্রী বিনালি বুধবার বেলা ১১ টার পরে বিমানে কক্সবাজার পৌঁছান। সেখান থেকে তিনি বিশাল গাড়ী বহর নিয়ে ১১টা ৫৪মিনিটের দিকে সরাসরি উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পৌঁছান। পরে তিনি তুরস্ক সরকারের অর্থায়নে নির্মিত দুটি ফিল্ড হাসপাতালের উদ্বোধন করেন এবং হাসপাতালের রোগীদের ব্যবহারের জন্য দুটি অত্যাধুনিক অ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর করেন স্থানীয় প্রশাসনকে।
সেখানে অপেক্ষমান মিয়ানমার সেনা কর্তৃক নির্যাতিত রোহিঙ্গা নারী, পুরুষ, শিশুদের সঙ্গে একান্তে আলাপ করেন। তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের দুঃখ দুর্দশা সম্পর্কে জানতে চাইলে রোহিঙ্গারা আবেগআপ্লুত হয়ে মিয়ানমার জান্তা ও উগ্রপন্থি রাখাইদের পৈশাচিক নির্যাতনের কথা উল্লেখ্য করেন।
রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার জন্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, তাদেরকে প্রত্যাবাসনের আওতায় মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেওয়া হলে যেন নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করা হয়। এসময় তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের বলেন সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হবে।
এরপর কুতুপালং ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের মধ্যে খাবার বিতরণ করেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী। দুপুর দেড় টার দিকে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বালুখালী ক্যাম্প ত্যাগ করে কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। সেখান থেকে তিনি বিকেলে বিমান যোগে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবেন।
এসময় তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন, তুরস্কের ডেপুটি উপ-প্রধানমন্ত্রী বেকির বোলজার, সমাজকল্যাণ মন্ত্রী ফাতেমা বেতুল ছায়ান, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এইচ এম আবুল হাসান মাহমুদ আলীসহ উচ্চ পর্যায়ের বিভিন্ন সরকারি, বেসরকারি কর্মকর্তারা।
উল্লেখ্য যে, তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম দুই দিনের সরকারি সফরে সোমবার রাতে ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন। মঙ্গলবার সকালে তিনি সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এ সময় তিনি পরিদর্শক বইয়ে স্বাক্ষর করেন এবং স্মারক হিসেবে একটি চারাগাছ রোপণ করেন।
এছাড়াও তিনি ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন এবং শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। জাদুঘরের বিভিন্ন বিভাগ ঘুরে দেখেন এবং বিকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে রোহিঙ্গাসহ আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন।

Top