সেন্টমার্টিন দ্বীপে আটকে পড়া সাড়ে ৪ শতাধিক পর্যটক টেকনাফে ফিরে এসেছে

teknaf-pic-11-12-17.jpeg

ফরহাদ আমিন,টেকনাফ(কক্সবাজার)
কক্সবাজারের সেন্টমার্টিনদ্বীপে ভ্রমনে এসে আটকা পড়া সাড়ে ৪ শতাধিক পর্যটক দুইদিন পর টেকনাফ ফিরে এসেছেন। ১১ ডিসেম্বর সোমবার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারি সিন্দাবাদ এবং কেয়ারি ক্রুজ এন্ড ডাইয়িং আটকা পড়া সাড়ে ৪ শতাধিক পর্যটককে নিয়ে সেন্টমার্টিন জেটিঘাট থেকে টেকনাফের উদ্দ্যেশে রওনা দেয়। জাহাজ দু’টি সন্ধ্যা ৭ টার দিকে টেকনাফ দমদমিয়া ঘাটে পৌঁছেন বলে জানিয়েছেন ওই দুই জাহাজের টেকনাফের পরিচালক আব্দুল আজিজ। তিনি জানান, সাগরে গভীর নি¤œচাপের ফলে ৩ নং সতর্ক সংকেত বলবৎ থাকায় ভ্রমণে এসে সেন্টমার্টিনদ্বীপে গত দুই দিন ধরে ৭ শতাধিক পর্যটক আটকা পড়েন। এরই মধ্যে রবিবার পাঁচটি ট্রলার যোগে আড়াই শতাধিক পর্যটক ফিরে আসে।
দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া ও ৩ নং সতর্ক সংকেত প্রত্যাহার হওয়ায় সোমবার দুপুর থেকে টেকনাফ- সেন্টমার্টিন নৌরুটে জাহাজ চলাচলা ফের চালু হয়। পরে জাহাজ দু’টি ভ্রমণে আসা ৩ শতাধিক পর্যটক নিয়ে সেন্টমার্টিনদ্বীপে যায়। বিকালে দ্বীপ থেকে ফেরার সময় আটকা পড়া পর্যটকদের ফিরিয়ে আনা হয়। গত শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া ও ৩ নং সতর্ক সংকেত থাকায় শনিবার টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে কোনো জাহাজ না ছাড়ায় দ্বীপে আটকা পড়েন এসব পর্যটক।
কক্সবাজার আবহাওয়া অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও সহকারী আবহাওয়াবিদ উজ্জ্বল কান্তি পাল জানান, গভীল নি¤œচাপ দুর্বল হয়ে যাওয়ায় আবহাওয়া স্বাভাবিক হলে সোমবার সকালে ৩ নং সতর্ক সংকেত প্রত্যাহার করা হয়েছে এবং সাগর ও নাফনদীতে মাছ শিকার ও পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।
টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ হোসেন ছিদ্দিক জানান, আবহাওয়া পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে জাহাজ চলাচল শুরু হওয়ায় গত দুইদিন ধরে দ্বীপে ভ্রমনে এসে আটকা পড়া পর্যটদের ফেরত আনা হয়েছে।

Top