জৈন্তাপুরে খাসি নদীতে অভিযান, বোমা মেশিন সরন্জাম ধবংস

FB_IMG_15126381854603998-1.jpg

এম.এম রুহেল,জৈন্তাপুর প্রতিনিধি:
সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার সীমান্তের খাসি হাওর এলাকার ১২৭৮নং আন্তর্জাতিক পিলারের ৫ এস সংলগ্ন এলাকায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানে ২০টি বোমা মেশিন ধ্বংস করা হয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়- খাসি হাওর এলাকার ১২৭৮নং আন্তর্জাতিক পিলারের ৫ এস সংলগ্ন খাসি নদী থেকে মো. আকবর আলী ও মো. আব্দুস ছাত্তারের নেতৃত্বে পাথরখেকো চক্র বেআইনিভাবে অবৈধ বোমা মেশিন ব্যবহার করে পাথর উত্তোলন করে আসছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে গত ২ ডিসেম্বর নিষেধাজ্ঞা জারি করার পরও চক্রটি বোমা মেশিন ব্যবহার করে পাথর উত্তোলন করছে।

আজ বৃহস্পতিবার (০৭ ডিসেম্বর) জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌরীন করিমের নেতৃত্বে সকাল সাড়ে ১০টায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে অন্তত ২০টি বোমা মেশিন ধ্বংস করা হয়েছে। এছাড়া যেহেতু খাসি নদীর সরকারি কোন লিজ কিংবা কোয়ারি নয়, সেহেতু নদীর উৎস্যমুখ থেকে বালু পাথর উত্তোলন করা সম্পূর্ণ বেআইনি ঘোষণা করে বিশেষ অভিযান পরিচালিত হয়।

এলাকাবাসীর দাবি- পাথরখেকোদের হাত থেকে নদীকে এবং শত শত একর ফসলি জমি রক্ষার জন্য প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। অন্যথায় খাসি হাওরের জীববৈচিত্র্য ধ্বংস হবে, সেই সাথে শত শত একর ফসলি জমি বিলিন হয়ে জাফলংয়ের মত বিরূপ পরিবেশ সৃষ্টি হবে। এছাড়া জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

এ বিষয় জানতে চাইলে জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌরীন করিম বলেন- সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) মুনতাছির হাসান পলাশ কে পাঠিয়ে অবৈধ কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ দেওয়ার পরও পাথরখেকো চক্রের সদস্যরা খাসি নদী থেকে তাদের কার্যক্রম বন্ধ করেনি। খাসি নদীতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে অন্তত ২০টি মেশিন ধ্বংস করি। জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরকে জানানো হয়েছে।

Top