গর্জনিয়ার ভূমি কর্মকর্তা অবশেষে বদলী

download-12.jpg

শামীম ইকবাল চৌধুরী,নাইক্ষ্যংছড়ি(বান্দরবান)থেকে::
সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে রামু উপজেলার গর্জনিয়া ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা আখতারুল আলম সেলিমকে দায়িত্বের প্রতি অবহেলা, দুর্নীতি ও অফিস কার্যক্রম অনিয়ম অভিযুক্ত করে অন্যত্র বদলী করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বার) বিকালে ইউনিয়ন ভূমি অফিস বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।
জানা যায়, গত ২০১৫ সালের দিকে ভূমি কর্মকর্তা আখতারুল আলম সেলিম যোগদানের পর হতে গর্জনিয়া ও কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের শত শত সাধারণ মানুষকে হয়রানী করে দাখিলা, নামপত্তন, খাস জমি বন্দোবস্ত, একসনা লীজ দেওয়ার নামে দূর্ণীতির মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া শুরু করে। দুটি ইউনিয়নের অসংখ্য মানুষ তার দ্বারা হয়রানী ও ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ভূক্তভোগী এসব লোকের কাছ থেকে ভূমি অফিসের কাজ
হাসিলের নাম করে ভূমি কর্মকর্তা আখতারুল আলম সেলিম ঘুষ গ্রহন করেছিল বলে জানা গেছে। দূর্ণীতিবাজ সেলিম এ সমস্ত অসংখ্য অনিয়ম, দূর্ণীতি ও হয়রানীর খবর ইতিপূর্বে স্থানীয়, আঞ্চলিক পত্র-পত্রিকায় ও অনলাইন মিডিয়ায় একাধিকবার প্রকাশিত হয়েছে।
অপর একটি সূত্র জানায়, এ দূর্ণীতিবাজ ভূমি কর্মকর্তা সেলিম ভূক্তভোগী গর্জনিয়ার রশিদ আহম্মদ ও আবু তালেবকে দম্ভোক্তিসূরে বলেন, মন্ত্রী পরিষদের সচিব আমার এলাকার। আমার বিরুদ্ধে পত্রিকায় লেখা লেখি করে কিছু করা সম্ভব নয়। যে কোন কাজ সাড়তে গেলে সরকারের ধার্য্য ফিঃসহ অতিরিক্ত টাকা দিয়ে কাজ আদায় করুন না হয় অফিস থেকে এক শত হাত দূরে থাকুন। আর এদিকে তার এসব দম্ভোক্তি সূর আর দুর্নীতির বিষয়ে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হলে তাকে অন্যত্রে বদলী করা হয়।বদলীর খবর দুই ইউনিয়নে ছড়িয়ে পড়লে ভূক্তভোগীরা কিছুটা স্বস্তি ফিরে পায়।

Top