সিম ক্লোনিং কৌশল প্রতারণা বিষয়ে কর্ণফূলী ইউএনওর সতর্কতামুলক ফেসবুক স্টাটাটাস

24829174_252251538638348_1506201397_n.png

জে,জাহেদ বিশেষ প্রতিবেদকঃ

প্রযুক্তির অপব্যবহারের মাধ্যমে যে কোন সরকারি কর্মকর্তা বা চেয়ারম্যানের মোবাইল ফোন নম্বর ক্লোনিং করে প্রতারণার কৌশল রপ্ত করেছে অপরাধীচক্র।

এ বিষয়ে ৬ই ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৫টায় নবসৃষ্ট কর্ণফূলী উপজেলার নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জী অফিসের ফেসবুকে পেইজে স্টাটাস দিয়ে জনগণকে সতর্ক করেছেন।

তথ্যসুত্রে জানা যায়, সাম্প্রতিকতম সময়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় ডিসি,ইউএনও,ওসি এবং স্থানীয় সরকারের অধীনে থাকা চেয়ারম্যানদের নাম্বার ক্লোনিং করে ফোন করে বিশাল অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে চক্র।

আর বিশেষ সফটওয়্যার ও অ্যাপসের মাধ্যমে মোবাইল ফোন নম্বর নকল করার এ পদ্ধতিকে বলা হয় ক্লোনিং। এমনকি মন্ত্রী, এমপিসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের মোবাইল ফোন নম্বর নকল করে প্রতারণার বেশ কিছু ঘটনা ধরাও পড়েছে।
তবে এরই মধ্যে অপরাধীরা পাল্টে ফেলেছে প্রতারণার কৌশল।

এবার তারা নিয়ে এসেছে স্পুফিং নামের আরেক পদ্ধতি, যার মাধ্যমে প্রতারকচক্রের কম্পিউটার ও মোবাইল ফোন আইডি (পরিচয়) হাইড (গোপন) রাখা যায়।
তবে স্পুফিংয়ের মাধ্যমে প্রতারণার ঘটনাও নজরে এসেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর। উন্নত প্রযুক্তির মাধ্যমে শনাক্ত করা গেছে একটি বড় চক্রকে।

দেশের আরো অনেকের মতো টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসিও এ ধরনের প্রতারণার শিকার বলে জানা গেছে।

গত বছরের ১৭ অক্টোবর বিটিআরসি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানায়, তাদের কর্মকর্তাদের নাম ব্যবহার করে ফোন বা এসএমএসের মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছ থেকে ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে একটি প্রতারকচক্র।

আরো জানা যায়,ভোলা,কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, কুষ্টিয়া, ঠাকুরগাঁও, চাঁদপুর, মেহেরপুর, বাগেরহাটসহ ৪০টির বেশি উপজেলার ইউএনও পরিচয় দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে এ পর্যন্ত ৫০ লাখ টাকার বেশি অর্থ তারা তাদের মোবাইল ফোনে ইনস্টল করা থাকে।

অন্যদিকে ‘ক্লোনিং’ বা স্পুফিং মানে সিমের পুরো তথ্যই চুরি করে মানুষকে বিপদে পেলে। যে কারো ব্যক্তিগত সিম ক্লোনিং এর শিকার হলে বিষয়টি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদেরও অবহিত করা প্রয়োজন।

বিষয়টি সর্বৈব গ্রাম গন্জে বা উপজেলার অনেকে জানেন না। তাদের সতর্ক করা সরকারী কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের সতর্কতা জানানো অতীব জরুরী।

যার তাগিদে কর্ণফূলী উপজেলার জনসাধারণের নিরাপত্তার স্বার্থে বিষয়টি সামাজিক মাধ্যমে নজরে আনতে ইউএনও বিজেন ব্যানার্জী স্টাটাস দিয়েছেন বলে জানা যায়।

Top