চার সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত

.jpg

সাইফুল ইসলাম,চট্টগ্রাম :
দেশের উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে ও তৎসংলগ্ন অবস্থানরত এলাকায় সাগরে নিম্নচাপে লঘুচাপে পরিণত হয়েছে। এতে ঝড়ো হাওয়ার শঙ্কায় দেশের চার সমুদ্র বন্দরকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতদর। গতকাল রবিবার (১১ জুন) আবহাওয়া অধিদফতরের এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। আবহাওয়া অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, নিম্নচাপটি চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর থেকে ৩৭০ কি. মি. পশ্চিম –দক্ষিণ পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্র বন্দর থেকে ৩৬০ কি. মি. পশ্চিম –দক্ষিণ পশ্চিমে, মংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ২০৫ কি. মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে ও পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ২১৫ কি. মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে। এতে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা ও সমুদ্র বন্দরগুলোর ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।নিম্নচাপটি কেন্দ্রের ৪৪ কি. মি. এর মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কি. মি. যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৫০ কি. মি. বা তারও বেশি বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিম্নচাপের কারণে কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর উত্তাল রয়েছে। এ কারণে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরগুলোকে তিন নম্বর সতর্ক সংকেত সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে উত্তর বঙ্গোপসাগরে থাকা সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে দ্রুত নিরাপদ।আশ্রয়ে যেতে বলে পরের নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত তাদের নিরাপদ আশ্রয়েই থাকতে বলা হয়েছে। এদিকে নিম্নচাপের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, কক্সবাজার,।নোয়াখালী, লক্ষীপুর, ফেনী, চাঁদপুর,।বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল,পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট,
খুলনা, সাতক্ষীরা ও এসব অঞ্চলের
কাছাকাছি দ্বীপ ও চরগুলোর নিচু
এলাকায় স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ১ থেকে ২ ফুট বেশি উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

Top