লক্ষ মুসল্লির অশ্রুসিক্ত নয়নে বিদায় জিএম রহিমুল্লাহর

IMG_20181121_120923.jpg

মু:ফায়েদ,কক্সবাজার ঈদগাহ ময়দান থেকে —

সকাল ৮ টা থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এক নজরে প্রিয় নেতা,প্রিয় চেয়ারম্যানকে দেখার জন্য কক্সবাজার ঈদগাহ ময়দানে ভিড় জমতে থাকে। অল্প সময়ের ব্যবধানে ঈদগাহ ময়দান হয়ে স্টেডিয়াম,সরকারী স্কুল মাঠ,পৌর প্রিপারেটরী স্কুল মাঠ,হাসপাতাল সড়ক লোকে লোকারণ্য হয়ে ওঠে। শোকাহত জনতার উদ্দেশ্যে চলতে থাকে মরহুমের সহপাঠি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের স্মৃতিচারণমুলক বক্তব্য।
সকাল ১১ টায় শুরু হয় মরহুমের জানাযা।
জানাযাপূর্ব শোকাহত জনতার উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন ইসলামী ঐক্যজোট কক্সবাজার জেলা সভাপতি হাফেজ সালামত উল্লাহ,সাবেক ঝিলংজা ইউপি চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল গফুর,কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান,কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কর্ণেল( (অবঃ)ফোরকান আহমে,জেলা জামায়াতের আমীর মাওলানা মুস্তাফিজুর রহমান,সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নেতা লুৎফর রহমান কাজল, চট্টগ্রাম মহানগর জামায়াতের আমীর মুহাম্মদ শাহজাহান।।
কক্সবাজার (সদর- রামু) আসনের সংসদ সদস্য জননেতা সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি ও জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য মাওলানা আব্দুল হালিম।
নেতৃবৃন্দ মরহুমের বিভিন্ন গুনের প্রশংসা করে বক্তব্য রাখেন।
স্থানীয় সংসদ সদস্য জননেতা সাইমুম সরওয়ার কমল এমপির হৃদয় নিংড়ানো কান্না মিশ্রিত বক্তব্যে উপস্থিত লক্ষ জনতা হু হু করে কেঁদে ওঠে। কিছুক্ষণের জন্য পুরু ময়দান ছিল অশ্রসিক্ত। তিনি তার বক্তব্যে মরহুম জিএম রহিমুল্লাহর পরিবারের জন্য কক্সবাজারে এক খন্ড জমি দান সহ তার স্মৃতিতে জিএম রহিমুল্লাহ সড়ক করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন।।
মরহুম জিএম রহিমুল্লাহ ছাত্র জীবনে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় নেতা, স্থানীয় ভারুয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও বর্তমানে কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বের পাশাপাশি তিনি জামায়াতে ইসলামী কক্সবাজার জেলার সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করেছিলেন।।
ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ৪ কন্যা ও ১ ছেলে সন্তানের জনক ছিলেন। বড় মেয়ে এইচ.এসসিতে অধ্যয়ন রত।।
মরহুম জিএম রহিমুল্লাহর মৃত্যুতে শোকাহত কক্সবাজারবাসী।। সর্বত্রে বিরাজ করছে শোকের ছায়া।

জানাযা পরবর্তী সর্বত্রে টক অব দা টাউন জিএম রহিমুল্লাহর জানাযার মত এত বড় জানাযা আর হয়নি কক্সবাজারে । তিনি খুব ভাল মানুষ ছিলেন, তার চলে যাওয়ায় শুন্যতা পুরণ হওয়ার নয়।।

Top