রাঙ্গামাটি সরকারি কলেজের উদ্যোগে পবিত্র ইদে-ই-মিলাদুন্নবী (সাঃ) উদযাপন ও অালোচনা সভা সম্পন্ন

received_292209098066715.jpeg

মোহাম্মদ কাইমুল ইসলাম ছোটন ঃ
রাঙ্গামাটি সরকারি কলেজের উদ্যোগে সকাল ১০ টায় শিক্ষক মিলনায়তনে পবিত্র ইদে-ই-মিলাদুন্নবী (সাঃ) উদযাপন ও এক অালোচনা সভার অায়োজন করা হয়। প্রথমে পবিত্র কুরঅান তেলাওয়াত করার মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়।
উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাঙ্গামাটি সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মঈন উদ্দীন। প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি বলেন,
মহানবী জন্মগ্রহণের মাধ্যমে বিশ্ব পেল নতুন একটি অালোর সন্ধান। ওনার জন্মগ্রহণের পূর্বে অারবের মানুষরা বিভিন্ন পাপাচারে লিপ্ত ছিল। সবসময় মারামারি-হানাহানিতে জড়িয়ে থাকত। যিনি মহান রাব্বুল অালামীনের শান্তির বাণী মানুষের কাছে তুলে ধরেন।
তিনি অারও বলেন, অাজকের দিনে বিশ্বনবী পরলোকগমণ করেন। যা অামাদের জন্য খুব বেদনাকর। তাই অামাদের উচিত বিশ্বনবীর অাদর্শ অনুযায়ী জীবন গড়ে তোলা। যার ফলে বিশ্বে অাবার শান্তি ফিরে অাসবে।
অনুষ্ঠান বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রসায়ন বিভাগের প্রধান অাবু ছৈয়দ চৌধুরী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য তিনি বলেন, বিশ্বনবী হল অামাদের জীবনাদর্শ। ওনি ইসলামে নারীর অবদান, যুবকদের নিয়ে গড়ে তোলা হিলফুল ফুযুলসহ, বিশ্বনবীর জন্মের পূর্বে অারব সমাজের অবস্থা নিয়ে কথা বলেন।
এতে অারও বক্তব্য রাখেন ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক অনিবার্ণ বড়ুয়া, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ মনজু মিয়া।
অতিথিবৃন্দ তাদের বক্তব্য বলেন, রাসূলের জন্মের পূর্বে কন্যা সন্তানদের কোন গুরুত্ব ছিল না, তাদের জীবন্ত হত্যা করা হত। একদিন রাসূল (সাঃ) এর কাছে এক লোক তার বাচ্চাকে নিয়ে বলেন, ছেলেটি প্রচুর মিষ্টি খায় কিভাবে এটি ছাড়তে পারি। রাসূল (সাঃ) তাকে বললেন, এক সপ্তাহ পর অাবার অাসেন। সপ্তাহের পর অাসলে রাসূল (সাঃ) বাচ্চাটিকে মাথায় হাত বুলিয়ে বললেন, বেশি মিষ্টি না খেতে,দেখ তোমার দাঁতের সমস্যা হতে পারে। তখন লোকটি বলল এই কথা তো প্রথম দিন বলতে পারতেন। এক সপ্তাহ পর কেন বললেন। রাসূল (সাঃ) বললেন অামি নিজেই মিষ্টি খায়, তখন অামি কিভাবে অন্যকে মিষ্টি না খেতে বলি। অাগে অামি মিষ্টি খাওয়া বন্ধ করে দিসি তারপর তাকে বললাম।
তারা অারও বলেন, ইসলাম প্রচার করতে গিয়ে তিনি অত্যাচার সহ্য করছেন। তারপরও তিনি অপরাধীকে ক্ষমা করে দেন। মহান রাব্বুল অালামীনের কাছে বলেন, অাল্লাহ তাদের ওপর অাপনার রহমত বর্ষিত করুন,তাদের ক্ষমা করে দেন। যা অামাদের জন্য খুব শিক্ষণীয়। সবসময় তিনি ধৈর্য্যর পরিচয় দিতেন। তাই অামাদের উচিত তার অাদর্শ অনুয়াযী জীবন পরিচালনা করা। তাছাড়া তারা অারও কুরঅান ও হাদিসের বর্ণনা করেন। বিজ্ঞান যা অাজকে অাবিষ্কার করে যাচ্ছেন রাসূল (সাঃ) তা ১৪০০ বছর পূর্বে বলে গেছেন। মুসলমানদের উচিত ধর্মের পাশাপাশি বিজ্ঞানের ও চর্চা করা।যার ফলে মুসলমানরা জ্ঞান-বিজ্ঞানে বিশ্বে অারও এগিয়ে যাবে। রাসূল (সাঃ) নিয়ে এসেছেন শান্তির বাণী, যা মানবজাতির জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। অনুষ্ঠাননে সভাপতিত্ব করেন গণিত বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জয়নাল অাবেদিন। প্রধান অালোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অামানত জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা অাবদুল মালেক। পরে দোঁয়া মাহফিলের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ হয়।
অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে স্বাগতম বক্তব্য রাখেন, রাঙ্গামাটি সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ নাজিম উদ্দীন। পবিত্র কুরঅান তেলাওয়াত করেন গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী মোহাম্মদ নাঈম।নাতে রাসূল বলেন রফিকুল ইসলাম। উক্ত অনুষ্ঠানে অারও উপস্থিত ছিলেন অত্র কলেজের শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ, কর্মচারীবৃন্দ,কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ চৌধুরী বাপ্পা সহ ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ এবং সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ । উক্ত অনুষ্ঠান সঞ্চলনার দায়িত্বে ছিলেন মোহাম্মদ রবিউল।

Top