ঝালকাঠি-১ বিপাকে আ.লীগ, বিএনপিতে স্বস্তি

received_802396153485957.png

জাহিদুল ইসলাম পলাশ,ঝালকাঠি প্রতিনিধি।
বরিশাল বিভাগের ২১ সংসদীয় আসনের ১৬ টি আসনে নিজেদের প্রার্থীতা চুড়ান্ত করছে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ। তবে কোন কোন আসনে কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি সে বিষয়ে কোন সুস্পষ্ট বক্তব্য পাওয়া যায় নি। দলটির কেন্দ্রীয় সুত্রে জানা গেছে সারা দেশের ৩০০ আসনের মধ্যে ২৩২ আসনে প্রার্থী দিচ্ছে আওয়ামীলীগ। বাকি ৬৮ টি আসন শরীকদের জন্য ছাড় দিবে। ওই ৬৮ আসনের মধ্যে ৫ টি আসন বরিশালে রয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে ঝালকাঠি-১ আসন নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে রয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ।আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন পত্র নিয়েছে বর্তমান সাংসদসহ আরো চারজন। এদের মধ্যে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে আছেন বর্তমান সাংসদ জননেতা বজলুল হক হারুন ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ নেতা মনিরুজ্জামান মনির। এদের মধ্যে কাকে নৌকার মাঝি করা হবে তা নিয়ে চলছে একাধিক সমীকরণ।
অন্যদিকে বিএনপিতে ব্যারিস্টার এম শাহজাহান ওমরের মনোনয়ন প্রায় নিশ্চিত।এছাড়াও মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করছেন আরো চারজন।
আসনটিতে বিএনপির তুমুল জনপ্রিয়তা থাকায় মনোনয়ন নিয়ে বিপাকে পড়ছে আওয়ামীলীগ।
স্থানীয় নেতৃবৃন্দের ধারণা, শাহজাহান ওমর এই আসন থেকে নির্বাচন করলে, তাকে হারাবার মতো আওয়ামীলীগের কোন প্রার্থী নেই।

সেক্ষেত্রে আওয়ামীলীগ হাঁটতে পারে ভিন্ন পথে। আওয়ামীলীগ তার শরীকদের এই আসনটি ছাড় দিতে পারে। জাতীয় পার্টি(জেপি) আনোয়ার হোসেন মঞ্জু পিরোজপুর – ২ আসন থেকে নির্বাচিত হয়ে আসছেন,এছাড়া এই আসনটি তার সন্নিকটে হওয়ায় বরাবরই চেয়ে আসছেন মহাজোটের কাছে।তিনি ২০০১ সালে এই আসন থেকে নির্বাচন করেন। তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতাপুর্ন হলেও সেই নির্বাচনে শাহজাহান ওমরের কাছে পরাজয় বরণ করেন।
স্থানীয় নেতৃবৃন্দ মনে করেন, এই আসনে যদি মহাজোটের শরীক আনোয়ার হোসেন মঞ্জুকে মনোনয়ন দেয়া হয়,তাহলে ভোট বক্সে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হতে পারে।
সেক্ষেত্রে মনোনয়ন থেকে ছিটকে যেতে পারেন বর্তমান সাংসদ জননেতা বজলুল হক হারুন ও আ.লীগে জনপ্রিয়তা ও ক্লিন ইমেজে এগিয়ে থাকা আওয়ামীলীগের কেন্দীয় নেতা মনিরুজ্জামান মনির।
তাই আওয়ামীলীগ থেকে কে হচ্ছেন ঝালকাঠি-১ আসনের মনোনিত ব্যক্তি তা জানতে অপেক্ষা করতে হবে ২৪ শে নভেম্বর পর্যন্ত।

Top