লামায় ৩২ জন এস.এস.সি পরীক্ষার্থীর শিক্ষাজীবন অনিশ্চয়তার পথে

received_556911054794344.jpeg

আরিফুল ইসলাম,লামা:
বান্দরবানের লামায় ‘লামামুখ উচ্চ বিদ্যালয়ের’ শিক্ষকদের স্বৈরাচারী ভূমিকার কারণে ৩২ জন অনিয়মিত শিক্ষার্থী এসএসসি ২০১৯ পরীক্ষার ফরম পূরণ করতে পারেনি। উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে বোর্ড কর্তৃক প্রেরিত “২০১৯ সালের অনুষ্ঠেয় এসএসসি পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি” না মানারও অভিযোগ উঠেছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড চট্টগ্রামের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের সুযোগ না পেয়ে প্রতিকার চেয়ে লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর কাছে লিখিত আবেদন করে শিক্ষার্থীরা। তারা আবেদনে উল্লেখ করে, লামামুখ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩২ জন অনিয়মিত শিক্ষার্থী সবাই ২০১৮ সালে দেয়া এসএসসি পরীক্ষায় একটি বিষয়ে খারাপ করে। এবছর তারা পুণরায় উক্ত একটি বিষয়ে পরীক্ষা অংশগ্রহণ করার কথা। বোর্ড কর্তৃক প্রেরিত বিজ্ঞপ্তি অনুসারে অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের বিষয়ে নির্বাচনী পরীক্ষা শিথিল করা হয়। কিন্তু বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস শুক্কুর বোর্ডের নিয়ম না মেনে অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণ না করে এসএসসি ২০১৯ পরীক্ষা দেয়া হতে বঞ্চিত করে। শিক্ষার্থীরা আরো বলে, আমরা পরীক্ষা দিতে না পারলে আমাদের লেখাপড়া চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে।

নাম প্রকাশ না করা সত্ত্বে এক অনিয়মিত শিক্ষার্থীর পিতা জানান, পরীক্ষা দিতে পারবেনা জেনে আমার ছেলে গতকাল (সোমবার দিবাগত রাত) রাতে বিষপান করতে চেয়েছিল। আমরা দেখে ফেলায় বিষপান করতে পারেনি। আমাদের ছেলে-মেয়েদের কিছু হলে এর দায়-দায়িত্ব আব্দুস শুক্কুর মাষ্টারকে নিতে হবে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস শুক্কুর বলেন, যারা নির্বাচনী পরীক্ষায় খারাপ করেছে আমরা তাদের এসএসসি পরীক্ষা ২০১৯ এর ফরম পূরণ করেনি। বোর্ড কর্তৃক অনিয়মিত শিক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষা শিথিল করা হয়েছে, তাহলে তারা পরীক্ষা দিতে পারবেনা কেন ? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, স্কুলের পরিচালনা কমিটি সহ সকলের মতামত নিয়ে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সোমা রাণী বড়ুয়া বলেন, অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণের বিষয়ে প্রধান শিক্ষক আব্দুস শুক্কুর কে বলা হয়েছিল। তিনি কেন কথা রাখেননি আমি বুঝতে পারছিনা।

এই বিষয়ে লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ জান্নাত রুমি বলেন, আমি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস শুক্কুরের সাথে কথা বলেছিলাম। তিনি আমাকে জানান, বোর্ডের নিয়ম মেনে এসএসসি ২০১৯ এর ফরম পূরণের যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

Top