ইতিবাচক মনোভাবের চাবিকাঠি–ড.শবনম জাহান

unnamed.png

::
দৈনন্দিন জীবনে কত্তো সব ঘটনা রয়েছে,যা প্রতিনিয়ত আমাদের ধৈর্যের পরীক্ষা নিয়ে চলে। কখনও ভাল স্কুলে ভর্তি,অফিসে-প্রশাসনে আটকে যাওয়া, কখনও বা পারিবারিক ঝঞ্ঝাট। এইসব দুশ্চিন্তা নিয়ে মনের কোণে দানা বাধে নেতিবাচক মনোভাব। জীবনে উঠানামা থাকবে।সেটাই তো স্বাভাবিক। নেতিবাচক মনোভাব কাটিয়ে উঠতে পারি নানাভাবে। আপনি নিজেকে যতটা শক্ত মনে করেন আপনার ক্ষমতা তার চাইতে অনেক বেশি।

জীবন মানে ভালো আর খারাপের মিলনমেলা।সব খারাপের মধ্যে কিছু না কিছু ভালো থাকে।চেষ্টা করুন সেই ভালোটাকে খুঁজে বের করতে। পরিস্থিতি অনুযায়ী সময় দিন নিজেকে সামনে নেবার। ইতিবাচক চিন্তায় সময় কাটান। এই ধরুন ভালো সিনেমা দেখা, গান শোনা অথবা বই পড়া, হতে পারে কোনো সমাজ সেবামূলক কাজ করা অথবা দান করা। নিজের মতো করে বাঁচতে শেখা আর যেকোনো সমালোচনা হাল্কাভাবে নিতে চেষ্টা করা।

জীবনটাকে উপভোগ করুন। আপনার যা করতে ভালো লাগে সেটাই করুন। মনে রাখতে হবে,”নিজেকে ভালোবাসা”ই হলো নেতিবাচক মনোভাবকে দূরে সরানোর সবচেয়ে বড় ঔষধ।

লেখক-
সহযোগী অধ্যাপক,ব্যবস্থাপনা বিভাগ
প্রভোস্ট,বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

Top